আঙুরের কিছু অজানা গুনাবলী

 
প্রকাশিত: 07/20/2021 at 10:36 am

আমাদের দেশের ফলের বাজারগুলোতে অনেক বেশি দেখা মেলে এমন একটি ফল হচ্ছ আঙুর। এ ফলটি অনেকেরই পছন্দে তালিকায় থাকে প্রথম দিকেই। অতি সুস্বাদু এ ফলটির উপকারি প্রভাবও কম নয়। এটি আপনার মস্তিষ্ক, হার্ট, ত্বক, এমনকি আপনার কোমরের জন্যেও অনেক উপকারি।

অন্যান্য সব ফলের মধ্যে আঙুরকে একটু অভিজাত বলে গণ্য করা হয়। এই ফল দিয়ে ওয়াইন, বিভিন্ন জুস এবং জেলি-জ্যাম ইত্যাদি তৈরি করা ছাড়াও নানারকম মুখরোচক রান্নাতেও এটি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আর এ ফলটি শুকিয়েই বানানো হয় কিশমিশ, যেটি ছাড়া অনেক শৌখিন খাবার দেখায় বেমানান।

স্বাদের পাশাপাশি আযুরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে মেলে বি১, সি, কে-এর মত ভিটামিন। এ ছাড়া পর্যাপ্ত পরিমাণে পটাশিয়াম ও খনিজ পদার্থ ম্যাঙ্গানিস থাকে এতে। আর শুকনো আঙুর বা কিশমিশে থাকে ৬০ শতাংশ ফ্রুকটোজ।

এ ফলটির অনেক স্বাস্থ উপকারিতা রয়েছে। তাবে এর বিজ্ঞানসম্মত কিছু গুণাবলী রয়েছে যা আমাদের অনেকেরই অজানা। জানুন এমন কিছু অজানা গুণাবলী-

১. ভালো ঘুম হতে সহায়তা করে

বিছানায় ঘুমাতে যাওয়ার আগে কয়েকটি আঙুর খেলে সেটি আপনার আরও ভালো ঘুম হতে সহায়তা করতে পারে। এই ফলের রসে মেলাটোনিন থাকার কারণে এটি ভালো ঘুম হতে সহায়তা করে। মেলাটোনিনকে স্লিপ হরমোন হিসাবে বলা হয়ে থাকে যেটি মস্তিষ্কের পাইনাল গ্রন্থি দ্বারা উত্পাদিত হয়। আর আঙুর খেলে এডিটর উৎপাদন আরও ভালোভাবে হয়ে থাকে।

২. কোলনের জন্য উপকারি
আঙুর খেলে সেটি একটি নির্দিষ্ট জিনের ভাবকে কমাতে সাহায্য করে। আর এই জিনটি কোলন টিউমার বৃদ্ধির জন্য দায়ী হয়ে থাকে। গবেষণা বলছে, এমন না যে আঙুর কোলন ক্যান্সারের চিকিত্সা করবে, তবে এটি কোলনের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে সহায়তা করবে।

৩. কেমোথেরাপির লক্ষণগুলি কমাতে সহায়তা করে
কেমোথেরাপির গ্রহণ করার ফলে কিছু লোক মুখের ঘা হওয়া, মুখ শুকিয়ে থাকা বা বমি বমি ভাব হয়ে থাকে। এসময় আঙুর খেলে এ সমস্যাগুলো থেকে স্বস্তি পাওয়া যায়।

৪. শিশুদের জন্য খাবারের ভালো বিকল্প
শিশুরা অনেক সময় খাবার খেতে চায় না। এমন ক্ষেত্রে তাদেরকে আঙুর খাওয়াতে পারেন বিকল্প হিসেবে। শিশুরা সাধারনত আঙুর খেতে পছন্দ করে থাকে। তাই এটি তাদেরকে খাবারের বিকল্প হিসেবে দেয়া যেতে পারে। তবে, আপনার শিশুর বয়স পাঁচ বছরের কম হলে তাদেরকে টুকরো করে খেতে দিতে হবে। নইলে এটি শিশুদের গলায় আটকে যেতে পারে।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন । আজই পাঠিয়ে দিন - write@sarabangla.in