করোনা কালে মায়াপুরের ইসকনের রথ পেরোবে মাত্র ২০০ মিটার পথ, হবে না কোনও উৎসব

 
প্রকাশিত: 07/10/2021 at 2:31 pm

বিপ্লবচন্দ্র দত্ত, কৃষ্ণনগর: এবারও রথযাত্রা (Rath Yatra) উপলক্ষে হবে না কোনও উৎসব। বসবে না মেলা। রথের দড়িতে জনসাধারণের কেউই দিতে পারবেন না টান। কারণ, এবার ইসকনের রথ পাঁচ কিলোমিটারের বদলে পেরোবে মাত্র ২০০ মিটার পথ। তাও ইসকন মন্দিরের ক্যাম্পাসের মধ্যেই। নদিয়ার মায়াপুর ইসকন মন্দিরের আয়োজিত রথযাত্রায় জনপ্লাবনের দেখা মিলবে না এবারও। করোনা পরিস্থিতির কারণে সরকারি বিধিনিষেধকে মান্যতা দিয়ে রথযাত্রা উপলক্ষে সমস্ত অনুষ্ঠান বাতিল করে দিয়েছে ইসকন কর্তৃপক্ষ। ফলে সোমবার ইসকন মন্দির কর্তৃপক্ষের রথযাত্রা শুধুই নিয়মরক্ষার। স্বল্প সংখ্যক পূজারীই শুধুমাত্র অংশগ্রহণ করতে পারবেন রথযাত্রায়। রথযাত্রা দেখা যাবে ভারচুয়ালি।

মায়াপুর ইসকন (ISKCON) মন্দিরের জনসংযোগ আধিকারিক রসিক গৌরাঙ্গ দাস জানিয়েছেন, “করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি বিধিনিষেধের কারণে সমস্ত অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। শুধুই নিয়মরক্ষার রথ হবে আমাদের ক্যাম্পাসের মধ্যেই। গদাভবন থেকে শুরু হয়ে রথ যাবে পঞ্চতত্ত্ব গেট পর্যন্ত। অর্থাৎ মাত্র ২০০ মিটার পথ পেরোবে। স্বল্পসংখ্যক পূজারী ছাড়া অন্য কেউ সক্রিয়ভাবে রথযাত্রায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। রথযাত্রার দিন মন্দিরে প্রবেশের মূল দরজা সর্বসাধারণের জন্য বিকেল চারটে পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এরপর মন্দির খুলে গেলে নিয়মকানুনের মধ্যে দিয়ে ভক্তরা জগন্নাথদেবকে দর্শন করার সুযোগ পাবেন। আগামীদিনে রথযাত্রা যাতে আরও ভালভাবে করা যায়, সেই দিকে লক্ষ্য রেখেই মন্দির কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সংক্রমণ যাতে আর ছড়িয়ে না পড়তে পারে তাই এই সিদ্ধান্ত।”

ইসকন মন্দির সূত্রে জানা গিয়েছে, জগন্নাথদেবের ৫৬ ভোগের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের সুযোগ থাকছে না ভক্তদের। অন্যবারের মতো এবার রথযাত্রা বিকেলে শুরু হবে না। বরং রথযাত্রার সময় নির্ধারিত হয়েছে সকাল দশটা থেকে বেলা বারোটার মধ্যে। ওই সময়ের মধ্যেই রথযাত্রার পুজোপর্ব, নিয়মকানুন পালন করার জন্য পূজারীদের বলা হয়েছে। এছাড়াও রথের দিন বিকেল চারটের পর সাধারণ ভক্তবৃন্দেরা যাতে মন্দির প্রাঙ্গণে জমায়েত না করেন, সেদিকে নজর রাখবেন ইসকন কর্তৃপক্ষ। ইসকন কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবার রাজাপুর মন্দিরের ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ মূর্তির পরিবর্তে ছোট আকারের যে মূর্তি ইসকনের গদাভবনে নিত্য পূজিত হয়, সেই মূর্তি দিয়েই রথযাত্রা হবে। জগন্নাথ, বলভদ্র, সুভদ্রার তিনটি রথের বদলে একটি ছোট রথেই তিনজনকে নিয়ে হবে যাত্রা। সেই মূর্তি দিয়েই হবে উলটো রথ।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন । আজই পাঠিয়ে দিন - write@sarabangla.in