কারফিউ সমাধান নয়, মানুষকে খাবার দিন: মির্জা ফখরুল

 
প্রকাশিত: 07/12/2021 at 10:26 am

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সরকারকে উদ্দেশে করে বলেছেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে কারফিউ জারি কোনো সমাধান নয়। সাধারণ মানুষের জন্য যদি অর্থের ব্যবস্থা করতে না পারেন, খাদ্যের ব্যবস্থা করতে না পারেন- তা হলে এ ধরনের অপরিকল্পিত লকডাউন কোনো সঠিক সমাধান আনতে পারবে না। দেশে পরপর লকডাউন হলেও সামাজিক-শারীরিক দূরত্ব সৃষ্টি করা সম্ভব হয়নি। লকডাউনে কি দেখা যাচ্ছে? মানুষকে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে, কষ্ট পাচ্ছে। অনেকে খাদ্যাভাবে কষ্ট পাচ্ছেন।

রোববার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পরামর্শ কমিটির কারফিউ জারির পরামর্শ সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন। শনিবার অনুষ্ঠিত দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির সভার সিদ্ধান্ত জানাতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে ওই সভা হয়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, লকডাউনের লক্ষ্যটা হচ্ছে- মানুষকে মানুষের কাছ থেকে দূরে রেখে, দূরত্ব সৃষ্টি করে সংক্রমণ প্রতিরোধ করা। সেটার জন্য তো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। কোথায় সেই সচেতনতা? খালি ধমক দিয়ে আর গরিব মানুষকে জেলের মধ্যে পুরে দিলে তো হবে না।

তিনি অভিযোগ করেন, আজকে ‘দিন আনে দিন খায়’ মানুষ কোনো রকমের সহযোগিতা পাচ্ছেন না। ইনফরমাল সেক্টর তো এমনিতেই ছোট ছোট পুঁজি নিয়ে কাজ করে। দুবার লকডাউনের ফলে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা তাদের পুঁজি হারিয়ে ফেলেছেন। তারা নিঃস্ব হয়ে গেছেন, পথে বসে গেছেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘কয়েকদিন আগে পত্রপত্রিকায় বেরিয়েছে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী আকুল আবেদন জানিয়েছেন। সেখানে বলা হয়েছে, কী পরিমাণ টাকা তারা করোনায় ব্যয় করছেন। একটা টেস্টের জন্য সাড়ে তিন হাজার টাকা ব্যয় করছেন। তারা যে হিসাব দিয়েছেন তাতে এই কয়েক মাসের মধ্যে প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকা খরচ করা হয়েছে। অথচ দেখা যাচ্ছে যে, কোথাও কোনো রকমের ব্যবস্থা নেই। হাসপাতালগুলোতে আইসিইউ নেই, অক্সিজেন নেই, সিলিন্ডার নেই, বেড নেই। চরম অব্যবস্থাপনা এবং দুর্নীতি। যার ফলে আজকে করোনা পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাচ্ছে না।’ ঢাকা জেলার সব হাসপাতালে সাংবাদিকদের করোনা সংক্রান্ত কোনো তথ্য না দিতে সিভিল সার্জনের সার্কুলার জারির নিন্দা জানান বিএনপি মহাসচিব।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন । আজই পাঠিয়ে দিন - write@sarabangla.in