চলতি সপ্তাহেই স্পেসএক্সে চাঁদে যাবে নাসার মহাকাশযান

 
প্রকাশিত: 07/26/2021 at 10:35 am

নাসার ‘ইউরোপা ক্লিপার’ মহাকাশযান স্পেসএক্স-এর ‘ফ্যালকন হেভি’ রকেটে চড়ে বৃহস্পতির চাঁদ ‘ইউরোপা’তে যাবে। মহাকাশ বিজ্ঞানীরা ধারণা করছে, বরফ আচ্ছাদিত ‘ইউরোপা’ জীবনধারণের উপযোগী হতে পারে। যদিও এর আসল উত্তর মিলতে পারে নাসার ‘ইউরোপা ক্লিপার’ মিশন থেকে। নাসা বৃহস্পতিবার চাঁদে স্পেস প্রোব পাঠানোর কথা ভাবছিল অনেকদিন ধরেই। সেই পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়েছে ২০১৯ সালে এসে। সম্প্রতি মিশনের দিনক্ষণ জানিয়েছে নাসা। ২০২৪ সালের অক্টোবরে কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে স্পেসএক্স-এর ‘ফ্যালকন হেভি’তে চড়ে যাত্রা শুরু হবে ‘ইউরোপা ক্লিপার’-এর।

এ প্রকল্পে স্পেসএক্স-এর রকেট ব্যবহারের ফলে নাসার খরচ হবে ১৭.৮ কোটি ডলার। নাসার নিজস্ব ‘স্পেস লঞ্চ সিস্টেম’ (এসএলএস) রকেটের খরচের সঙ্গে তুলনা করলে ‘ফ্যালকন হেভি’র পেছনে খরচ অনেক কম মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির।

প্রাথমিক অবস্থায় নাসাকে এসএলএস রকেট ব্যবহার করতে চাপ দিচ্ছিল মার্কিন কংগ্রেস। ওই সময়ে একটি এসএলএস রকেটের পেছনে ২০০ কোটি মার্কিন ডলার খরচ হবে বলে ধারণা করেছিল হোয়াইট হাউস। অন্যদিকে ‘ইউরোপা’র উদ্দেশ্যে যাত্রাপথে শুক্র গ্রহের মাধ্যাকর্ষণের ওপরও নির্ভর করতে হবে এসএলএস রকেটকে, যা পুরো মিশনকে আরও জটিল করে তোলে। এ ছাড়াও এসএলএস রকেট মডিফিকেশনের পেছনে আরও একশ’ কোটি ডলার খরচ করতে হবে বলে জানিয়েছিল নাসা। সেই তুলনায় এসএলএস রকেটের বদলে স্পেসএক্স-এর ‘ফ্যালকন হেভি’ রকেট ব্যবহার করলে খরচ ও কার্যক্রমের জটিলতা কমে আসবে অনেকাংশে।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন । আজই পাঠিয়ে দিন - write@sarabangla.in