আর্জেন্টিনার রোজারিওর সান্তা ফেতে, যেখানে ফুটবলে যাত্রা শুরু হয়েছিল তাঁর— ঠিক সেখানেই জীবনের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেছেন লিওনেল মেসি। লিভ ইন রিলেশনের দিন শেষ করে গতকাল শুক্রবার দীর্ঘদিনের বান্ধবী আন্তোনেলা রক্কুজ্জোকের বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন এই বার্সেলোনা তারকা।

মেসির বিয়ে বলে কথা, তাই ছিল এলাহি আয়োজন। এমন আনন্দ মেসির সঙ্গে ভাগ করে নিতে হাজির হয়েছেন ফুটবল জগতের অনেক রথী-মহারথী। রোজারিওতে তাই যেন বসেছিল চাঁদের হাট।

২৬০ জন অতিথি মেসির এই বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। বিয়েতে বার্সেলোনা-ভিত্তিক খ্যাতনামা ডিজাইনার রোসা ক্লারার ডিজাইন করা পোশাক পরেছিলেন রক্কুজ্জো। স্পেন থেকেই এসেছে সেই ড্রেস। তা ছাড়া প্রায় ২০ জন হেয়ারড্রেসার ছিলেন, হাজার হোক, ‘ফার্স্ট লেডি অব ফুটবল’কে সাজানোর দায়িত্ব তো আর সহজ নয়। আর মেসি পড়েছিলেন সাদা শার্টের ওপর স্যুট-প্যান্ট।

মেসির বার্সা সতীর্থরা পৌঁছে গিয়েছেন আগেই। নেইমার, লুইস সুয়ারেজ, জেরার্ড পিকে, দানি আলভেজ, সার্জিও আগুয়েরো থেকে শুরু করে মেসির কাছের বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। পিকে আসেন তাঁর স্ত্রী কলম্বিয়ান পপ তারকা শাকিরাকে নিয়ে। অনুষ্ঠানে গান গেয়েছেন পিকের বান্ধবী পপস্টার শাকিরা।

গালা ইভেন্টে চমৎকার সব মেনুও ছিল। শুরুতে ব্রেড আর স্যালাড। এ ছাড়া আর্জেন্টিনার বিখ্যাত সব খাবার ছাড়াও ছিল সুসি স্টেশন। সান্তা ফের সিটি সেন্টারে বিয়ের অনুষ্ঠানে ক্যাসিনো খেলার সুবিধা ছাড়াও ভিতরে টেনিস খেলার জায়গা, বার কাম রেস্তোরাঁ, সুইমিং পুল সবই ছিল।

অবশ্য বিয়ের আগেই তাঁদের সুখের সংসার আলো করে এসেছে দুটি সন্তানও। আলোচিত এই জুটি এবার বিয়ের মাধ্যমে সম্পর্কটাকে আরো শক্ত করলেন।

মেসি-রক্কুজ্জো দীর্ঘদিন ধরে এক ছাদের নিচেই ছিলেন। ২০১২ সালে তাদের প্রথম সন্তান চিয়াগো ও ২০১৫ সালে দ্বিতীয় সন্তান মাতেও জন্ম নেয়।

শৈশব থেকেই মেসি-রক্কুজ্জো বন্ধুত্ব। পাঁচ বছর বয়সে দুজনের প্রথম দেখা। এর পর থেকেই তাঁরা ঘনিষ্ঠ বন্ধু । পরে মেসি আর্জেন্টিনা ছেড়ে স্পেনে পাড়ি জমালেও রক্কুজ্জোর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক অটুট ছিল। সেটা এবার বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলো।

(Why?)

Comments

comments