গত ফেব্রুয়ারিতে আসাঙ্কা গুরুসিনহাকে ‘ক্রিকেট ম্যানেজার’ হিসেবে নিয়োগ দেয় শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। তাঁর দায়িত্ব বিস্তৃত হওয়ায় কোচের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ হতে থাকে; যা মেনে নিতে পারেননি শ্রীলঙ্কার কোচ গ্রাহাম ফোর্ড। তাই শেষপর্যন্ত দেশটির কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি।

আজ শনিবার শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের সভাপতি থিলাঙ্গা সুমাথিপালা জানিয়েছেন, দুপক্ষের মধ্যে সমঝোতার ভিত্তিতে কোচের পদ থেতে সরে দাঁড়িয়েছেন ফোর্ড।

অবশ্য দ্বিতীয় মেয়াদে শ্রীলঙ্কার কোচের দায়িত্ব নিয়ে ফোর্ড ১৫ মাসের মাথায় অনেকটা ক্ষোভ থেকে পদত্যাগ করেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই ক্রিকেটার তাঁর কাজে হস্তক্ষেপ মেনে নিতে পারেননি।

গত বছর ফেব্রুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার কোচের দায়িত্ব নেন তিনি। অবশ্য তাঁর চুক্তির মেয়াদ ছিল ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত।

এর আগে প্রথম মেয়াদে ২০১২ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত দেশটির কোচের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। কিন্তু দ্বিতীয় মেয়াদে তাঁর দায়িত্বটা খুব একটা সুখকর হয়নি। গত চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে তাঁর অধীনে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেয়।

(Why?)

Comments

comments