বাংলাদেশিদের উল্লাস দেখে আবেগঘন স্ট্যাটাস সাবেক আর্জেন্টাইন অধিনায়কের

 
প্রকাশিত: 07/15/2021 at 10:02 am

কোপা আমেরিকার ফাইনালে মেসিদের সমর্থন ও জয়ের পর বাংলাদেশিদের উল্লাস দেখে মুগ্ধ হয়েছেন সাবেক আর্জেন্টাইন অধিনায়ক হুয়ান পাবলো সোরিন।

বাংলাদেশ সময় গত রোববার ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতে আর্জেন্টিনা। জয়ের পর বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় করোনাকালীন বিধিনিষেধের উপেক্ষা করে আর্জেন্টিনার পতাকা নিয়ে উল্লাস করে ফুটবলপ্রেমীরা। আর সেটি চোখে পড়ে সোরিনের।

২০০৬ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলের লেফটব্যাক ও অধিনায়ক সোরিন ইনস্টাগ্রামে বিশাল এক পোস্টে বাংলাদেশের সমর্থকদের নিয়ে তার পুরোনো স্মৃতি রোমন্থনের পাশাপাশি এবারের উদযাপনের জন্য ধন্যবাদ জানান।

তিনটি ভিডিওতে বাংলাদেশের আর্জেন্টিনা ভক্তদের উদযাপনের দৃশ্যও তুলে ধরেন তিনি।

১৯৯৫ ফিফা যুব বিশ্বকাপেও ব্রাজিলকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল আর্জেন্টিনা, সে দলে ছিলেন সোরিন। কাতারে অনুষ্ঠিত সে যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে কাতারপ্রবাসী অনেক বাংলাদেশি সমর্থক মাঠে গিয়েছিলেন। আর্জেন্টিনার পতাকা নিয়ে, আর্জেন্টিনার নামে উল্লাস করেছিলেন বাংলাদেশিদের অনেকে।

সেই স্মৃতি স্মরণ করে সোরিন বলেন, ২৬ বছর আগে আমরা কাতারে ব্রাজিলের বিপক্ষে বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছিলাম। দেশ থেকে কত দূরে ছিলাম! পরিবার, বন্ধুবান্ধব কিংবা সমর্থকদের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য এত প্রযুক্তি ছিল না। কিন্তু সেই অবিশ্বাস্য স্টেডিয়ামেও আর্জেন্টিনার একটা পতাকা ছিল, কয়েকজন ভক্ত পতাকাটি এত আবেগ নিয়ে নাড়াচ্ছিলেন। আমাদের মুখে হাসি ফুটিয়েছিল সে দৃশ্য, মনে রোমাঞ্চ তৈরি করেছিল। পতাকাটার গায়ে লেখা ছিল ‘বাংলাদেশ’। কয়েকজনের একটা গ্রুপ আমাদের সমর্থনে লাফাচ্ছিল, চিৎকার করছিল।

বাংলাদেশকে মন থেকে ধন্যবাদ দিয়ে সাবেক আর্জেন্টাইন অধিনায়ক বলেন, সে কারণে বাংলাদেশের সবাইকে আমি ধন্যবাদ দিতে চাই, সম্মান জানাতে চাই, যারা কিনা বিশ্বের অন্য একটা প্রান্তে রাস্তায় নেমে আমাদের কোপা আমেরিকা জয়ের উদযাপন করেছেন!

স্ট্যাটাসে দিয়েগো ম্যারাডোনা ও মেসিসহ ১৯৭৮ ও ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জেতানো দল দুটির সবাইকে ধন্যবাদ জানান সোরিন।

বাংলাদেশিদের আরেকবার ধন্যবাদ আর শ্রদ্ধা জানিয়ে সোরিন লেখেন, আকাশি-সাদা পতাকাটা গায়ে জড়িয়ে যেভাবে তারা (বাংলাদেশি ভক্ত) উদযাপন করেছেন, ঠিক একইভাবে করেছিলেন কাতারে সে রাতেও। আপনাদের ধন্যবাদ।

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন । আজই পাঠিয়ে দিন - write@sarabangla.in