বাংলাদেশের স্পিন সামলাতে অস্ট্রেলিয়ার ব্যতিক্রমী অনুশীলন!

আর মাত্র দুই দিন পরই সাদা পোষাকের যুদ্ধ শুরু হবে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে।  তাই  শেষ মুহূর্তে এসে নিজেদের ঝালিয়ে নিচ্ছে দুই দলই।  যদিও ঢাকার আকাশে প্রতিদিনই চলছে মেঘ বৃষ্টির খেলা।  তাই বৃষ্টি নিয়ে কিছুটা শঙ্কার পাশাপাশি বাংলাদেশী স্পিন নিয়েও বেশ মাথা ঘামাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়া দল! আর সেই স্পিন সামলাতে ব্যতিক্রমী এক উপায় বেছে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।   আর সেটা হল, প্যাড ছাড়া অনুশীলনে নেমেছেন স্মিথ-ওয়ার্নাররা।

গতকাল অসিদের এমন অনুশীলনে

দেখা গেছে এমন দৃশ্য।  গ্লাভস হাতে কিংবা হেলমেট মাথায় দিয়ে ব্যাটিং অনুশীলন করলেও পায়ে কোনো প্যাড নেই তাদের।  অজিদের অভিনব এই অনুশীলন দেখে সবাই অবাক।  সবার মনে একটাই প্রশ্ন, হঠাৎ তারা এভাবে অনুশীলন করছে কেন?

আর সেই উত্তর দিতে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল জানালেন, ‘বাংলাদেশের স্পিন সামলাতেই এই বিশেষ অনুশীলন করছে তারা।  ম্যাক্সওয়েল বলেন, ‘২০১২ সালে জাস্টিন ল্যাঙ্গার যখন ব্যাটিং কোচ ছিলেন, তখন এমনটা করেছিলাম।  স্পিনের মুখোমুখি হয়ে ব্যাটের ব্যবহারটা নিশ্চিত করাই এ অনুশীলনের লক্ষ্য।  আপনার সামনে যদি প্যাডের নিরাপত্তা না থাকে, তাহলে পা সরিয়ে নেবেন এবং ব্যাট ব্যবহার করবেন।  এটা আমাদের রক্ষণটা ঠিক করার জন্য।  এতে আত্মবিশ্বাসও তৈরি হয়, ব্যাট দিয়ে নিজেকে রক্ষা করা যায়, প্যাডের দরকার হয় না। ‘

মেহেদী হাসান মিরাজ কিংবা সাকিব আল হাসানের স্পিন সামলাতেই এমনটা ভাবতে বাধ্য করেছে ম্যাক্সওয়েলদের, ‘যাঁরা স্টাম্প সোজা বল করেন, তাঁদের বিপক্ষে এটি খুবই কার্যকর এবং বাংলাদেশ তা খুব ভালোভাবে করে।  তারা এ লাইনে টানা বল করে এবং রক্ষণের ওপর চাপ সৃষ্টি করে।  তাই আমরা এ নিয়ে কাজ করতে থাকব। ‘

অস্ট্রেলিয়া এই বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান মনে করেন, বাংলাদেশের স্পিনারদের শক্তির জায়গাটা মাথায় রেখেই এই অনুশীলন হচ্ছে দলে।

উল্লেখ্য, টেস্টের মূল লড়াইটা শুরু হবে ২৭ আগস্ট।  মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে গড়াবে প্রথম টেস্ট।  দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।  ৪ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে চলবে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *