Breaking News

অমল মল্লিক তার ইমরান হাশমি এশা গুপ্তা অভিনীত গান ম্যায় রাহুন ইয়া না রাহুন দাদা সর্দার মালিককে উৎসর্গ করেছেন – শুভ জন্মদিন অমল মল্লিক

আমাল মালিককে দেখলে মনে হয় না তার বয়স ৩১ বছর। 16 জুন জন্মগ্রহণ করেন, আমাল মালিক উত্তরাধিকারসূত্রে সঙ্গীত পেয়েছিলেন। দাদা সর্দার মালিক হিন্দি সিনেমার একজন অসাধারণ সুরকার। তার বাবা ডাব্বু মালিক তাকে একটি গান উপহার দিয়েছেন। আর, দাদা সর্দার মালিকের কাছ থেকে গান শিখেছেন অমল। তিনি বলেন, “আমার বয়স যখন ১৫ বছর, নবম শ্রেণীতে পড়ি, তখন অনেক লোক আমার দাদার কাছে গান শিখতে আসত, সেই সময় থেকে আমিও দাদুর কাছে গান শিখতে শুরু করি। দাদার কাছ থেকে আমি ভারতীয় সঙ্গীত এবং পিয়ানো বাজানো শিখেছি। আমার গানে যে সুর আসে তা আমার দাদার শিক্ষা থেকে আসে। দাদাজির কাছ থেকে আমি যে সংগীতের উত্তরাধিকার পেয়েছি তা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমার প্রচেষ্টা।

অভিনয়ে অভিনয়ে আসতেই হবে

আমাল মালিকের বাবা ডাব্বু মালিকও একজন অভিনেতা হিসাবে কাজ করেছেন, পরে তিনি একজন সঙ্গীতশিল্পী হয়েছিলেন। আমাল মালিকও কি ছবিতে অভিনয় করতে চান? তিনি বলেন, ‘আমিও দুই-তিনটি ছবিতে কাজ করার প্রস্তাব পেয়েছি, কিন্তু করিনি। কারণ আমি মনে করি অভিনয় করতে হলে অভিনয় করতেই হবে। আমি মনের দিক থেকে খুব পরিষ্কার, অভিনয় করতে পারব না। নিজের মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেছি। সেখানে অভিনয় ঠিক আছে, তবে চলচ্চিত্রে নয়।

সালমান খানের ‘জয় হো’-তে পাওয়া গেছে বিশাল সুযোগ

আমাল মালিক সালমান খানের ছবি ‘জয় হো’ দিয়ে চলচ্চিত্রে সঙ্গীত সুরকার হিসেবে তার ক্যারিয়ার শুরু করেন। অমল বলেছেন, “যখন ‘জয় হো’ ছবির গানগুলি কাজ করেনি তখন এটি আমাকে হতাশ করেনি, তবে এটি আমাকে আরও দুর্দান্ত গান করতে অনুপ্রাণিত করেছিল। যাই হোক, প্রতিটি গানেরই নিয়তি আছে। আমি তখন ‘ককটেল’ ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক করছিলাম এবং সেই সময়ে আমার ভাই আরমান মালিকের জন্য একটি অ্যালবাম তৈরি করেছিলাম যা ‘আরমান’ নামে প্রকাশিত হয়েছিল। আরমান যখন এই অ্যালবাম নিয়ে মেহবুব স্টুডিওতে সালমান খানের সাথে দেখা করেন, তখন সালমান খান দুটি গান খুব পছন্দ করেন এবং একই গানের আদলে তাকে ‘জয় হো’ করতে বলেছিলেন।

দ্বিতীয় সুযোগ দিলেন সালমান খান

আমাল মালিক বলেছেন, “সালমান ভাই মানুষের খুব সমর্থনকারী। ‘জয় হো’-তে ফ্লপ মিউজিক দেওয়ার পরও ‘ম্যায় তেরা হিরো’-এর মতো মেলোডি গান বানাও। ততদিনে তিনি ‘হিরো’ ছবির সিক্যুয়েলের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। যখন ছবিটি ঘোষণা করা হয়েছিল, তখন ‘ম্যায় তেরা হিরো’-এর মতো সুর নিয়ে এসে গানটি শুনে আমি আনন্দিত হয়েছিলাম। তিনি আরো বিস্ময় প্রকাশ করেন যে ছবিটি নির্মাণের ঘোষণা সবেমাত্র ঘোষণা করা হয়েছে এবং আপনি এর জন্য গান রচনা করেছেন। এতে বেশ মুগ্ধ সালমান খান।

দাদাকে উৎসর্গ করা গান

আমাল মালিক এখন পর্যন্ত শতাধিক গান করেছেন। সেসব গানের মধ্যে তার ‘ম্যায় রাহুন না রাহুন’ গানটি শুধু তার হৃদয়ের খুব কাছেই নয়, এই গানটি তার ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট হিসেবেও প্রমাণিত হয়েছে। আমাল মালিক বলেন, “আমার বয়স যখন 14 বছর, আমি আমার দাদার জন্য এই গানটি করতে চেয়েছিলাম, কিন্তু তখন তা করতে পারিনি। আমি এই গানটি আমার দাদাকে উৎসর্গ করেছি।” এই গানটি এখন পর্যন্ত ইউটিউবে প্রায় 320 মিলিয়ন (32 কোটি) ভিউ পেয়েছে।


Source link

About sarabangla

Check Also

অঞ্জন দাস হত্যা মামলা দিল্লি পাণ্ডব নগর পুনম এবং দীপক তিনবার মৃতদেহ দেখতে গিয়েছিলেন

শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার মতোই আরেকটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা নাড়া দিয়েছে দেশের রাজধানী দিল্লিকে। পাণ্ডব নগরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *