Breaking News

কানওয়ারিয়ারা শামলি থেকে ট্রেনের ছাদে উঠতে হরিদ্বার যাচ্ছে

খবর শুনতে

মহাশিবরাত্রিতে, প্রচুর সংখ্যক কানওয়ারিয়ারা ভগবান আশুতোষের জলাভিষেক করতে এবং পবিত্র গঙ্গার জল আনতে হরিদ্বারের দিকে রওনা হচ্ছেন। রুট ডাইভারশনের কারণে শামলি জেলায় সব ধরনের সড়ক পরিবহন বন্ধ রয়েছে। শুধুমাত্র সাহারানপুর হয়ে হরিদ্বার যাওয়ার বিকল্প আছে। রেল ট্র্যাফিক সম্পর্কে কথা বললে, দিল্লি থেকে শামলি হয়ে হরিদ্বার পর্যন্ত শুধুমাত্র একটি কানওয়ার বিশেষ ট্রেন চালানো হয়। যেখানে ইতিমধ্যেই এত ভিড় যে ট্রেনের দরজায় ঝুলতেও কষ্ট হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই ট্রেনে করে হরিদ্বার যেতে হচ্ছে জেলার শত শত কানওয়ারিয়াকে।

কানওয়ার স্পেশাল ডেইলি ট্রেন রাত ১১টার দিকে স্টেশনে পৌঁছায়। এর আগেও হাজার হাজার কানওয়ারিয়া স্টেশনে পৌঁছায়। এই কানওয়ারিয়াদের কেউ কেউ কোনো না কোনোভাবে ট্রেনে ঝুলে পড়েন, অধিকাংশকেই ফিরতে হয় হতাশ হয়ে। আরপিএফ, জিআরপি-র পাশাপাশি পুলিশ কর্মীরা ইউনিফর্ম এবং কানওয়ারিয়াদের ছদ্মবেশে স্টেশনে ডিউটি ​​করছে, তবে শিব ভক্তদের ভিড়ের সামনে তারাও অসহায়। এই সমস্যার কথা বললে কানওয়ার স্পেশাল ট্রেনে বগি বাড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন রেলের ডিআরএম।

আরও পড়ুন: অনন্য ছবি: এমন শিশুর গল্প, যারা নতুন জীবন পেয়েছে, তারা অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে

কানওয়ারিয়ারাও ছাদে চড়ে
দিল্লি-শামলি-সাহারানপুর রেলপথে বিদ্যুতায়নের কাজ কয়েক মাস আগেই শেষ হয়েছে। আগে এই রেলপথে ডিজেল ইঞ্জিন দিয়ে ট্রেন চলাচল করত। ইলেকট্রিক ট্রেন চালানোর পরও ট্রেনের ছাদে বসে যাতায়াত করছেন কিছু শিবভক্ত। যা বেশ বিপজ্জনক। আরপিএফ ও জিআরপি কর্মীরা তাদের থামাতে পারছে না।

সম্প্রসারণ

মহাশিবরাত্রিতে, প্রচুর সংখ্যক কানওয়ারিয়ারা ভগবান আশুতোষের জলাভিষেক করতে এবং পবিত্র গঙ্গার জল আনতে হরিদ্বারের দিকে রওনা হচ্ছেন। রুট ডাইভারশনের কারণে শামলি জেলায় সব ধরনের সড়ক পরিবহন বন্ধ রয়েছে। শুধুমাত্র সাহারানপুর হয়ে হরিদ্বার যাওয়ার বিকল্প আছে। রেল ট্র্যাফিক সম্পর্কে কথা বললে, দিল্লি থেকে শামলি হয়ে হরিদ্বার পর্যন্ত শুধুমাত্র একটি কানওয়ার বিশেষ ট্রেন চালানো হয়। যেখানে ইতিমধ্যেই এত ভিড় যে ট্রেনের দরজায় ঝুলতেও কষ্ট হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই ট্রেনে করে হরিদ্বার যেতে হচ্ছে জেলার শত শত কানওয়ারিয়াকে।

কানওয়ার স্পেশাল ডেইলি ট্রেন রাত ১১টার দিকে স্টেশনে পৌঁছায়। এর আগেও হাজার হাজার কানওয়ারিয়া স্টেশনে পৌঁছায়। এই কানওয়ারিয়াদের কেউ কেউ কোনো না কোনোভাবে ট্রেনে ঝুলে পড়েন, অধিকাংশকেই ফিরতে হয় হতাশ হয়ে। আরপিএফ, জিআরপি-র পাশাপাশি পুলিশ কর্মীরা ইউনিফর্ম এবং কানওয়ারিয়াদের ছদ্মবেশে স্টেশনে ডিউটি ​​করছে, তবে শিব ভক্তদের ভিড়ের সামনে তারাও অসহায়। এই সমস্যার কথা বললে কানওয়ার স্পেশাল ট্রেনে বগি বাড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন রেলের ডিআরএম।

আরও পড়ুন: অনন্য ছবি: এমন শিশুর গল্প, যারা নতুন জীবন পেয়েছে, তারা অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে

কানওয়ারিয়ারাও ছাদে চড়ে

দিল্লি-শামলি-সাহারানপুর রেলপথে বিদ্যুতায়নের কাজ কয়েক মাস আগেই শেষ হয়েছে। আগে এই রেলপথে ডিজেল ইঞ্জিন দিয়ে ট্রেন চলাচল করত। ইলেকট্রিক ট্রেন চালানোর পরও ট্রেনের ছাদে বসে যাতায়াত করছেন কিছু শিবভক্ত। যা বেশ বিপজ্জনক। আরপিএফ ও জিআরপি কর্মীরা তাদের থামাতে পারছে না।


Source link

About sarabangla

Check Also

অঞ্জন দাস হত্যা মামলা দিল্লি পাণ্ডব নগর পুনম এবং দীপক তিনবার মৃতদেহ দেখতে গিয়েছিলেন

শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার মতোই আরেকটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা নাড়া দিয়েছে দেশের রাজধানী দিল্লিকে। পাণ্ডব নগরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *