Breaking News

যমুনা এক্সপ্রেসওয়ের সেতু থেকে দ্রুতগামী গাড়ি পড়ে, চালকের মৃত্যু

খবর শুনতে

যমুনা এক্সপ্রেসওয়েতে গতির বিপর্যয় আবারও মারাত্মক প্রমাণিত হয়েছে। শনিবার নয়ডা থেকে আগ্রার দিকে ঘণ্টায় 210 কিলোমিটার গতিতে একটি BMW গাড়ি ভারসাম্যহীনতার কারণে রেলিং ভেঙে 20 ফুট নিচে পড়ে যায়। আগ্রার দিকে জিরো পয়েন্ট থেকে 11 তম কিলোমিটারে ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনায়, হরিয়ানার বাহাদুরগড়ের বাসিন্দা ভরত যাদব (21) ঘটনাস্থলেই মারা যান, এবং তার সহকর্মী গৌরব গুরুতর আহত হন।

দুর্ঘটনায় গাড়িটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং উভয় যুবক এতে আটকা পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ অনেক চেষ্টার পর গাড়ি থেকে বের করে। আহতকে চিকিৎসার জন্য নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় সেখান থেকে পরিবারের সদস্যরা তাকে রেফার করে দিল্লি নিয়ে যান। ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই নিহতের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। দুই মাস আগে বাবার মৃত্যু এবং এখন ছেলে পরিবারকে পুরো শোকের মধ্যে ফেলে দিয়েছে।

ডানকৌর থানার ইনচার্জ রাধা রমন সিং জানিয়েছেন যে শনিবার সকালে পুলিশ খবর পায় যে যমুনা এক্সপ্রেসওয়ের গালগোটিয়া কলেজের কাছে একটি বিএমডব্লিউ গাড়ি দ্রুতগতিতে যাচ্ছিল এবং নিরাপত্তা রেলিং ভেঙে এক্সপ্রেসওয়ে থেকে নিচে পড়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গাড়িতে আটকে পড়া আহতদের উদ্ধার করে কৈলাস হাসপাতালে পাঠায়।

হাসপাতালে, গাড়ির চালক ভারত যাদব, বাহাদুরগড় জেলার সেক্টর-6-এর বাসিন্দা, ঝাজ্জরকে চিকিত্সকরা মৃত ঘোষণা করেন। আহত গৌরবের চিকিৎসা চলছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। জানিয়ে রাখি, প্রায় দুই মাস আগে মৃত ভরত যাদবের বাবাও মারা যান।

সেই ধাক্কা থেকে পরিবারটিও বের হতে পারেনি যে পরিবারের ওপর আবারও দুঃখের পাহাড় ভেঙে পড়ে। ভরত যাদব গুরুগ্রামের সেক্টর-২৩-এ অবস্থিত একটি কলেজে এমবিএ পড়ছিলেন। এই খবর বাহাদুরগড়ে পৌঁছলে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে। শহরের প্রতিটি বাসিন্দা তার বাড়িতে পৌঁছে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: রোহতকে গুলিবর্ষণ: রোহতকে গুলিবর্ষণ: রাজ্যপালের ছুটির পরে এমডিইউতে গুলি, NSUCI-এর প্রাক্তন সভাপতি সহ চারজন আহত

পরিবারটি এখন ভরতের মা ও বোন নিয়ে গঠিত। মা শহরে স্কুল চালায়। ভরতের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকে তার মা অনুরাধা চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি। অপর স্বজনদেরও অবস্থা খারাপ।ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই নিহতের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। দুই মাস আগে বাবার মৃত্যু এবং এখন ছেলে পরিবারকে পুরো শোকের মধ্যে ফেলে দিয়েছে।

ডানকৌর থানার ইনচার্জ রাধা রমন সিং জানিয়েছেন যে শনিবার সকালে পুলিশ খবর পায় যে যমুনা এক্সপ্রেসওয়ের গালগোটিয়া কলেজের কাছে একটি বিএমডব্লিউ গাড়ি দ্রুতগতিতে যাচ্ছিল এবং নিরাপত্তা রেলিং ভেঙে এক্সপ্রেসওয়ে থেকে নিচে পড়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গাড়িতে আটকে পড়া আহতদের উদ্ধার করে কৈলাস হাসপাতালে পাঠায়।

হাসপাতালে, গাড়ির চালক ভারত যাদব, বাহাদুরগড় জেলার সেক্টর-6-এর বাসিন্দা, ঝাজ্জরকে চিকিত্সকরা মৃত ঘোষণা করেন। আহত গৌরবের চিকিৎসা চলছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। জানিয়ে রাখি, প্রায় দুই মাস আগে মৃত ভরত যাদবের বাবাও মারা যান।

আরও পড়ুন: সোনালি ফোগাট: গোয়া পুলিশ সুধীর সাংওয়ানের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট অনুসন্ধান করেছে, সম্পত্তির কারণে হত্যার কোণে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে

সেই ধাক্কা থেকে পরিবারটিও বের হতে পারেনি যে পরিবারের ওপর আবারও দুঃখের পাহাড় ভেঙে পড়ে। ভরত যাদব গুরুগ্রামের সেক্টর-২৩-এ অবস্থিত একটি কলেজে এমবিএ পড়ছিলেন। এই খবর বাহাদুরগড়ে পৌঁছলে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে। শহরের প্রতিটি বাসিন্দা তার বাড়িতে পৌঁছে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

পরিবারটি এখন ভরতের মা ও বোন নিয়ে গঠিত। মা শহরে স্কুল চালায়। ভরতের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকে তার মা অনুরাধা চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি। পরিবারের অন্য সদস্যদেরও অবস্থা খারাপ।

ছয়টি এয়ারব্যাগও বাঁচাতে পারেনি শিক্ষার্থীর জীবন
বিএমডব্লিউএ গাড়িটিতে ছয়টি এয়ারব্যাগ ছিল। দুর্ঘটনার সময় গাড়ির সব এয়ারব্যাগ খোলা ছিল। এমনকি ছয়টি এয়ারব্যাগও তাদের দুজনকে নিরাপদ রাখতে পারেনি। এর কারণ হিসেবে বলা হয় গাড়ির উচ্চ গতি।

গাড়ির গতি বেশি থাকায় ভারসাম্য হারিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় মারা গেছেন বাহাদুরগড়ের বাসিন্দা ছাত্র ভারত। পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। -অভিষেক ভার্মা, ডিসিপি

সম্প্রসারণ

যমুনা এক্সপ্রেসওয়েতে গতির বিপর্যয় আবারও মারাত্মক প্রমাণিত হয়েছে। শনিবার নয়ডা থেকে আগ্রার দিকে ঘণ্টায় 210 কিলোমিটার গতিতে একটি BMW গাড়ি ভারসাম্যহীনতার কারণে রেলিং ভেঙে 20 ফুট নিচে পড়ে যায়। আগ্রার দিকে জিরো পয়েন্ট থেকে 11 তম কিলোমিটারে ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনায়, হরিয়ানার বাহাদুরগড়ের বাসিন্দা ভরত যাদব (21) ঘটনাস্থলেই মারা যান, এবং তার সহকর্মী গৌরব গুরুতর আহত হন।

দুর্ঘটনায় গাড়িটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং উভয় যুবক এতে আটকা পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ অনেক চেষ্টার পর গাড়ি থেকে বের করে। আহতকে চিকিৎসার জন্য নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় সেখান থেকে পরিবারের সদস্যরা তাকে রেফার করে দিল্লি নিয়ে যান। ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই নিহতের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। দুই মাস আগে বাবার মৃত্যু এবং এখন ছেলে পরিবারকে পুরো শোকের মধ্যে ফেলে দিয়েছে।

ডানকৌর থানার ইনচার্জ রাধা রমন সিং জানিয়েছেন যে শনিবার সকালে পুলিশ খবর পায় যে যমুনা এক্সপ্রেসওয়ের গালগোটিয়া কলেজের কাছে একটি বিএমডব্লিউ গাড়ি দ্রুতগতিতে যাচ্ছিল এবং নিরাপত্তা রেলিং ভেঙে এক্সপ্রেসওয়ে থেকে নিচে পড়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গাড়িতে আটকে পড়া আহতদের উদ্ধার করে কৈলাস হাসপাতালে পাঠায়।

হাসপাতালে, গাড়ির চালক ভারত যাদব, বাহাদুরগড় জেলার সেক্টর-6-এর বাসিন্দা, ঝাজ্জরকে চিকিত্সকরা মৃত ঘোষণা করেন। আহত গৌরবের চিকিৎসা চলছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। জানিয়ে রাখি, প্রায় দুই মাস আগে মৃত ভরত যাদবের বাবাও মারা যান।

সেই ধাক্কা থেকে পরিবারটিও বের হতে পারেনি যে পরিবারের ওপর আবারও দুঃখের পাহাড় ভেঙে পড়ে। ভরত যাদব গুরুগ্রামের সেক্টর-২৩-এ অবস্থিত একটি কলেজে এমবিএ পড়ছিলেন। এই খবর বাহাদুরগড়ে পৌঁছলে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে। শহরের প্রতিটি বাসিন্দা তার বাড়িতে পৌঁছে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: রোহতকে গুলিবর্ষণ: রোহতকে গুলিবর্ষণ: রাজ্যপালের ছুটির পরে এমডিইউতে গুলি, NSUCI-এর প্রাক্তন সভাপতি সহ চারজন আহত

পরিবারটি এখন ভরতের মা ও বোন নিয়ে গঠিত। মা শহরে স্কুল চালায়। ভরতের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকে তার মা অনুরাধা চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি। অপর স্বজনদেরও অবস্থা খারাপ।ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই নিহতের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। দুই মাস আগে বাবার মৃত্যু এবং এখন ছেলে পরিবারকে পুরো শোকের মধ্যে ফেলে দিয়েছে।

ডানকৌর থানার ইনচার্জ রাধা রমন সিং জানিয়েছেন যে শনিবার সকালে পুলিশ খবর পায় যে যমুনা এক্সপ্রেসওয়ের গালগোটিয়া কলেজের কাছে একটি বিএমডব্লিউ গাড়ি দ্রুতগতিতে যাচ্ছিল এবং নিরাপত্তা রেলিং ভেঙে এক্সপ্রেসওয়ে থেকে নিচে পড়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গাড়িতে আটকে পড়া আহতদের উদ্ধার করে কৈলাস হাসপাতালে পাঠায়।

হাসপাতালে, গাড়ির চালক ভারত যাদব, বাহাদুরগড় জেলার সেক্টর-6-এর বাসিন্দা, ঝাজ্জরকে চিকিত্সকরা মৃত ঘোষণা করেন। আহত গৌরবের চিকিৎসা চলছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। জানিয়ে রাখি, প্রায় দুই মাস আগে মৃত ভরত যাদবের বাবাও মারা যান।

আরও পড়ুন: সোনালি ফোগাট: গোয়া পুলিশ সুধীর সাংওয়ানের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট অনুসন্ধান করেছে, সম্পত্তির কারণে হত্যার কোণে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে

সেই ধাক্কা থেকে পরিবারটিও বের হতে পারেনি যে পরিবারের ওপর আবারও দুঃখের পাহাড় ভেঙে পড়ে। ভরত যাদব গুরুগ্রামের সেক্টর-২৩-এ অবস্থিত একটি কলেজে এমবিএ পড়ছিলেন। এই খবর বাহাদুরগড়ে পৌঁছলে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে। শহরের প্রতিটি বাসিন্দা তার বাড়িতে পৌঁছে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

পরিবারটি এখন ভরতের মা ও বোন নিয়ে গঠিত। মা শহরে স্কুল চালায়। ভরতের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকে তার মা অনুরাধা চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি। পরিবারের অন্য সদস্যদেরও অবস্থা খারাপ।

ছয়টি এয়ারব্যাগও বাঁচাতে পারেনি শিক্ষার্থীর জীবন

বিএমডব্লিউএ গাড়িটিতে ছয়টি এয়ারব্যাগ ছিল। দুর্ঘটনার সময় গাড়ির সব এয়ারব্যাগ খোলা ছিল। এমনকি ছয়টি এয়ারব্যাগও তাদের দুজনকে নিরাপদ রাখতে পারেনি। এর কারণ হিসেবে বলা হয় গাড়ির উচ্চ গতি।

গাড়ির গতি বেশি থাকায় ভারসাম্য হারিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় মারা গেছেন বাহাদুরগড়ের বাসিন্দা ছাত্র ভারত। পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। -অভিষেক ভার্মা, ডিসিপি


Source link

About sarabangla

Check Also

অঞ্জন দাস হত্যা মামলা দিল্লি পাণ্ডব নগর পুনম এবং দীপক তিনবার মৃতদেহ দেখতে গিয়েছিলেন

শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার মতোই আরেকটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা নাড়া দিয়েছে দেশের রাজধানী দিল্লিকে। পাণ্ডব নগরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *