Breaking News

ইউরিক অ্যাসিড বাড়লে আতঙ্কিত হবেন না, এই পদ্ধতিতে নিয়ন্ত্রণ করুন, কিডনি রোগের ঝুঁকি কমবে

হাইলাইট

প্রতিদিন ব্যায়াম করা ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে।
নন-ভেজ খেলে ইউরিক অ্যাসিড বাড়ার আশঙ্কা থাকে, তাই এড়িয়ে চলুন।

ইউরিক এসিড নিয়ন্ত্রণের সহজ উপায়ঃ ইউরিক অ্যাসিড আমাদের শরীরে তৈরি একটি বর্জ্য পদার্থ, যা প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। যখন কোনো সমস্যার কারণে ইউরিক অ্যাসিডের উৎপাদন বেড়ে যায় এবং তা শরীর থেকে বের হতে না পারে, তখন তা শরীরের বিভিন্ন স্থানে জমা হয়ে যায়। এ কারণে হাত-পায়ের জয়েন্টে প্রচণ্ড ব্যথা হয়। যদি দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসা না করা হয়, তাহলে ইউরিক অ্যাসিড কিডনি ফেইলিওর এবং ঘন ঘন কিডনিতে পাথর হতে পারে। কিছু ছোটখাটো বিষয় খেয়াল রাখলেই আপনি ইউরিক অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন।

আরও পড়ুন: হঠাৎ জ্বর হলে কোন ওষুধ খাওয়া নিরাপদ? ডাক্তারের কাছ থেকে শিখুন

এই ৫টি উপায়ে নিয়ন্ত্রণ করুন ইউরিক অ্যাসিড

1. নন-ভেজ এড়িয়ে চলুন: ইউরিক অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণের সর্বোত্তম উপায় হল আমিষ থেকে দূরে থাকা। স্যার গঙ্গারাম হাসপাতালের বিশেষজ্ঞরা অমরেন্দ্র পাঠক ড বলা হয়, আমিষ খেলে ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। এ ছাড়া বেশি পরিমাণে ডাল খাওয়াও উপকারী বলে মনে করা হয় না। ইউরিক অ্যাসিডের রোগীদের খাওয়া-দাওয়ায় সতর্ক থাকতে হবে।

2. প্রচুর পানি পান করুন এবং চিনিযুক্ত পানীয় এড়িয়ে চলুন: বেশি বেশি পানি পান করলে শরীর থেকে ইউরিক অ্যাসিড বের হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এর কারণে এটি আপনার শরীরে জমতে পারবে না। এ ছাড়া সোডা, কোল্ড ড্রিংকস, স্পোর্টস ড্রিংকস এবং অন্যান্য পানীয় এড়িয়ে চলতে হবে। আপনি স্বাস্থ্যকর তরল খেতে পারেন।

আরও পড়ুন: কফি পান করলে কি হৃদরোগ ও ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে?

3. প্রতিদিন ব্যায়াম করুন: ব্যায়াম ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে। এটি প্রদাহ কমায় এবং শরীরের ওজন বজায় রাখে। এছাড়াও, ইনসুলিন প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত হয়। প্রতিদিন প্রায় ৩০ মিনিট ব্যায়াম করলে অনেক রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

4. বিয়ার এবং ওয়াইন ছেড়ে দিন: হেলথলাইন থেকে একটি প্রতিবেদন এর মতে, বিয়ার এবং অ্যালকোহল সেবন করলে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা বেড়ে যায়, যা গাউটের সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে। এই সমস্যা এড়াতে, বিয়ার এবং অ্যালকোহল সম্পূর্ণরূপে ত্যাগ করা ভাল।

5. পর্যাপ্ত ঘুম পাওয়া গুরুত্বপূর্ণ: এখন পর্যন্ত অনেক গবেষণায় এটা উঠে এসেছে যে প্রতিদিন ৬-৭ ঘণ্টা না ঘুমালে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে। তাই প্রতিদিন পর্যাপ্ত ঘুমান। এর সাহায্যে আপনি ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন।

ট্যাগ: স্বাস্থ্য, জীবনধারা, ট্রেন্ডিং খবর


Source link

About sarabangla

Check Also

খুব বেশি গুড় খাওয়া আপনার স্বাস্থ্যের ক্ষতি করতে পারে, শীতকালে এটি সাবধানে খান, জেনে নিন এর ক্ষতিকর দিকগুলো

গুড়ের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া: মানুষ গ্রীষ্মের চেয়ে শীতকাল বেশি পছন্দ করলেও শীত এলেই নানা ধরনের রোগও দ্রুত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *