Breaking News

আম্বালায় 100টি ভোটার আইডিতে একই মহিলার ছবি

চরণজিৎ কৌর।

চরণজিৎ কৌর।
– ছবি: সম্বাদ নিউজ এজেন্সি

খবর শুনতে

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে আম্বালার ঢাকাউলা গ্রামের ছয় নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার তালিকায় চমক দেখা গেল। এতে 100টি ভোটার আইডিতে 75 বছর বয়সী চরণজিৎ কৌর নামে এক অবিবাহিত মহিলার ছবি সাঁটানো হয়েছে। এখনও এমনটি হয়নি, তবে গত সাত বছর ধরে ভোটার তালিকার এই অবস্থা, অন্যদিকে মহিলাটি বলেছেন যে তিনি এ নিয়ে বহুবার অভিযোগ করেছেন কিন্তু ভোটার তালিকা সংশোধন করা হয়নি।

পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে আবারও এই ভোটার তালিকা আম্বালার সাহা এলাকায় আলোচনা ও তোলপাড়ের কারণ হয়ে উঠেছে কারণ এলাকার অন্যান্য গ্রামবাসীরাও এই ভুল তালিকায় আক্রান্ত হচ্ছেন। অন্যদিকে, গ্রামবাসীদের প্রতিবাদের পর ব্লক ও উন্নয়ন পঞ্চায়েত আধিকারিকও এই বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। চরণজিৎ কৌর ঢাকাউলা গ্রামের বাসিন্দা। মহিলাটি বলেছিলেন যে এই জগাখিচুড়ি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল 2015 সালে।

2019 সালের নির্বাচনেও ভোটার তালিকায় শতাধিক ভোটার কার্ডে একই ছবি সাঁটানো হয়েছিল। এটি সংশোধন করার জন্য, তিনি পঞ্চায়েত অফিসে গিয়েছিলেন যেখানে তিনি ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত অন্যান্য ভোটারদের নামের সামনে থাকা কলাম থেকে তার ছবি সরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করেছিলেন। তা সত্ত্বেও তার সমস্যার সমাধান হয়নি। ওই নারী জানান, ভোটার তালিকায় অনেক পুরুষের নাম থাকলেও তাদের কলামের সামনেও একই ছবি সাঁটানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: কারনাল: করভা চৌথের আগে সুহাগ ছিনতাই, দুর্ঘটনায় স্বামীর মৃত্যু, স্ত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক, মেহেন্দি করতে ফিরছিলেন দম্পতি

আশ্চর্যের বিষয় হলো, গ্রামের যেসব মেয়ের বিয়ে হয়েছে বা যারা মারা গেছে তাদের নামের সামনেও চরণজিৎ কৌরের ছবি লাগানো হয়েছে। এ প্রসঙ্গে চরণজিৎ কৌরের ছেলে তেজিন্দর সিং বলেন, ওই ওয়ার্ডের ভোটার তালিকায় অন্য ভোটারদের নামের সামনে আমার মায়ের ছবি রয়েছে।

আমরা বহুবার পঞ্চায়েত অফিসে আবেদন করেছি কিন্তু কেউ শুনছে না। ছেলে বলেন, গ্রামবাসীরা এর বিরোধিতা করায় আমরা এ নিয়ে খুবই বিরক্ত। আমরা প্রশাসনের কাছে দাবি জানাই ভোটার তালিকা সংশোধন করে অন্য ভোটারদের ভোটার আইডি থেকে তার মায়ের ছবি তুলে দেওয়া হোক এবং শেষ পর্যন্ত এত বড় ভুল কীভাবে হল তা তদন্ত করে দেখা হোক।

অপরদিকে এ বিষয়ে গ্রামবাসীর দুই দিন ধরে ধর্নার পর তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিডিপিও। এর পর গ্রামবাসীরা আপাতত ধর্না স্থগিত করেন। দুদিনের মধ্যে সমাধান না হলে আবারও আন্দোলনে নামবেন বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

জাল ভোটের অভিযোগ
ওয়ার্ডবান্দি ঠিক করার দাবিতে গত দুদিন ধরে অবস্থান কর্মসূচি পালনকারী গ্রামবাসীরা বলছেন, ভোটার তালিকায় তাদেরও জাল ভোট রয়েছে। ভোটার তালিকায় আটটি ওয়ার্ডের ১৪৮০টি ভোট দেখানো হয়েছে। এর মধ্যে ৩৫০টি ভোট জাল। ওয়ার্ড-২-এর ১৯২টির মধ্যে ৩৬, ওয়ার্ড-৪-এ ১৬১ জনের মধ্যে ৪১ এবং ওয়ার্ড-৮-এর ১৮১ জনের মধ্যে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বহু বছর আগে। একইসঙ্গে ওয়ার্ড-২-এর ভোটার অর্ন্তভুক্ত হয়েছে ৭ জন, ওয়ার্ড-৩-এর ভোটার রয়েছেন পাঁচজন এবং ওয়ার্ড-৪-এর ভোটার রয়েছেন ছয়জন।

সম্প্রসারণ

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে আম্বালার ঢাকাউলা গ্রামের ছয় নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার তালিকায় চমক দেখা গেল। এতে 100টি ভোটার আইডিতে 75 বছর বয়সী চরণজিৎ কৌর নামে এক অবিবাহিত মহিলার ছবি সাঁটানো হয়েছে। এখনও এমনটি হয়নি, তবে গত সাত বছর ধরে ভোটার তালিকার এই অবস্থা, অন্যদিকে মহিলাটি বলেছেন যে তিনি এ নিয়ে বহুবার অভিযোগ করেছেন কিন্তু ভোটার তালিকা সংশোধন করা হয়নি।

পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে আবারও এই ভোটার তালিকা আম্বালার সাহা এলাকায় আলোচনা ও তোলপাড়ের কারণ হয়ে উঠেছে কারণ এলাকার অন্যান্য গ্রামবাসীরাও এই ভুল তালিকায় আক্রান্ত হচ্ছেন। অন্যদিকে, গ্রামবাসীদের প্রতিবাদের পর ব্লক ও উন্নয়ন পঞ্চায়েত আধিকারিকও এই বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। চরণজিৎ কৌর ঢাকাউলা গ্রামের বাসিন্দা। মহিলাটি বলেছিলেন যে এই জগাখিচুড়ি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল 2015 সালে।

2019 সালের নির্বাচনেও ভোটার তালিকায় শতাধিক ভোটার কার্ডে একই ছবি সাঁটানো হয়েছিল। এটি সংশোধন করার জন্য, তিনি পঞ্চায়েত অফিসে গিয়েছিলেন যেখানে তিনি ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত অন্যান্য ভোটারদের নামের সামনে থাকা কলাম থেকে তার ছবি সরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করেছিলেন। তা সত্ত্বেও তার সমস্যার সমাধান হয়নি। ওই নারী জানান, ভোটার তালিকায় অনেক পুরুষের নাম থাকলেও তাদের কলামের সামনেও একই ছবি সাঁটানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: কারনাল: করভা চৌথের আগে সুহাগ ছিনতাই, দুর্ঘটনায় স্বামীর মৃত্যু, স্ত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক, মেহেন্দি করতে ফিরছিলেন দম্পতি

আশ্চর্যের বিষয় হলো, গ্রামের যেসব মেয়ের বিয়ে হয়েছে বা যারা মারা গেছে তাদের নামের সামনেও চরণজিৎ কৌরের ছবি লাগানো হয়েছে। এ প্রসঙ্গে চরণজিৎ কৌরের ছেলে তেজিন্দর সিং বলেন, ওই ওয়ার্ডের ভোটার তালিকায় অন্য ভোটারদের নামের সামনে আমার মায়ের ছবি রয়েছে।

আমরা বহুবার পঞ্চায়েত অফিসে আবেদন করেছি কিন্তু কেউ শুনছে না। ছেলে বলেন, গ্রামবাসীরা এর বিরোধিতা করায় আমরা এ নিয়ে খুবই বিরক্ত। আমরা প্রশাসনের কাছে দাবি জানাই ভোটার তালিকা সংশোধন করে অন্য ভোটারদের ভোটার আইডি থেকে তার মায়ের ছবি তুলে দেওয়া হোক এবং শেষ পর্যন্ত এত বড় ভুল কীভাবে হল তা তদন্ত করে দেখা হোক।

অপরদিকে এ বিষয়ে গ্রামবাসীর দুই দিন ধরে ধর্নার পর তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিডিপিও। এর পর গ্রামবাসীরা আপাতত ধর্না স্থগিত করেন। দুদিনের মধ্যে সমাধান না হলে আবারও আন্দোলনে নামবেন বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

জাল ভোটের অভিযোগ

ওয়ার্ডবান্দি ঠিক করার দাবিতে গত দুদিন ধরে অবস্থান কর্মসূচি পালনকারী গ্রামবাসীরা বলছেন, ভোটার তালিকায় তাদেরও জাল ভোট রয়েছে। ভোটার তালিকায় আটটি ওয়ার্ডের ১৪৮০টি ভোট দেখানো হয়েছে। এর মধ্যে ৩৫০টি ভোট জাল। ওয়ার্ড-২-এর ১৯২টির মধ্যে ৩৬, ওয়ার্ড-৪-এ ১৬১ জনের মধ্যে ৪১ এবং ওয়ার্ড-৮-এর ১৮১ জনের মধ্যে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বহু বছর আগে। একই সঙ্গে ওয়ার্ড-২-এর ভোটার অর্ন্তভূক্ত হয়েছে ৭ জন, ওয়ার্ড-৩-এর ভোটার রয়েছেন পাঁচজন এবং ওয়ার্ড-৪-এর ভোটার রয়েছেন ছয়জন।




Source link

About sarabangla

Check Also

গুজরাট নির্বাচন 2022 এর প্রথম ধাপে শীর্ষ দশটি ধনী প্রার্থী

গুজরাটের তিন ধনী প্রার্থী – ছবি: আমার উজালা খবর শুনুন খবর শুনুন গুজরাটে, 89টি বিধানসভা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *