Breaking News

ভক্তরা বারসানা – মথুরায় রাধারানীকে তিন কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত সিংহাসন উপহার দিয়েছেন

সোনার রৌপ্য সিংহাসন হীরা দিয়ে খচিত

সোনার রৌপ্য সিংহাসন হীরা দিয়ে খচিত
ছবি: আমার উজালা

খবর শুনতে

মথুরার বারসানায়, হীরা এবং সোনা-রূপার সিংহাসনটি বুধবার বিকেলে রাধারানী মন্দিরে পৌঁছেছিল। বৃহস্পতিবার সকালে রাধারাণী এই সিংহাসনে আবির্ভূত হয়ে ভক্তদের দর্শন দেন। এই সিংহাসনটি উপস্থাপন করেছেন দিল্লির শ্রী ব্রজ হরি সংকীর্তন মণ্ডলের বাব্বু ভাইয়া। হীরা জড়ানো এই সিংহাসনে ৫৫ কেজি রূপা ও ৫ কেজি সোনা ব্যবহার করা হয়েছে।

সংকীর্তন মণ্ডলের সদস্য ব্রিজ বিহারী শর্মা জানান, বাবু ভাইয়া ৫২ বছর ধরে কোনো টাকা না নিয়ে ঘরে ঘরে ভজন কীর্তন গাইছেন। শ্রীজীর (রাধারানী) অনুপ্রেরণায় হীরা জড়ানো সোনা-রূপার সিংহাসন তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। বাবু ভাইয়া সংকীর্তন মণ্ডলের সামনে সিংহাসন নির্মাণের প্রস্তাব দেন, তারপর সবাই সিদ্ধান্ত নেন সিংহাসন নির্মাণের। সিংহাসনটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ছয় কোটি টাকা।

মানুষের কাছ থেকে অনুদান সংগ্রহ করে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। এটি 10 ​​লাখ মূল্যের হীরা দ্বারা খচিত। বুধবার বিকেলে রাধারাণীর পায়ে সিংহাসন তৈরি ও উৎসর্গ করা হয়। বৃহস্পতিবার রাধারানী নবনির্মিত সিংহাসনে বসে ভক্তদের আশীর্বাদ বর্ষণ করেন। এই সময়, মন্দিরটি একটি বিশাল ফুলের বাংলো দিয়ে সজ্জিত করা হবে। রাধারানী উপবিষ্ট হওয়ার খুশিতে মন্দির চত্বরের ভান্ডারের আয়োজন করা হবে দুদিন।

সম্প্রসারণ

মথুরার বারসানায়, হীরা এবং সোনা-রূপার সিংহাসনটি বুধবার বিকেলে রাধারানী মন্দিরে পৌঁছেছিল। বৃহস্পতিবার সকালে রাধারাণী এই সিংহাসনে আবির্ভূত হয়ে ভক্তদের দর্শন দেন। এই সিংহাসনটি উপস্থাপন করেছেন দিল্লির শ্রী ব্রজ হরি সংকীর্তন মণ্ডলের বাব্বু ভাইয়া। হীরা জড়ানো এই সিংহাসনে ৫৫ কেজি রূপা ও ৫ কেজি সোনা ব্যবহার করা হয়েছে।

সংকীর্তন মণ্ডলের সদস্য ব্রিজ বিহারী শর্মা জানান, বাবু ভাইয়া ৫২ বছর ধরে কোনো টাকা না নিয়ে ঘরে ঘরে ভজন কীর্তন গাইছেন। শ্রীজীর (রাধারানী) অনুপ্রেরণায় হীরা জড়ানো সোনা-রূপার সিংহাসন তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। বাবু ভাইয়া সংকীর্তন মণ্ডলের সামনে সিংহাসন নির্মাণের প্রস্তাব দেন, তারপর সবাই সিদ্ধান্ত নেন সিংহাসন নির্মাণের। সিংহাসনটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ছয় কোটি টাকা।

মানুষের কাছ থেকে অনুদান সংগ্রহ করে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। এটি 10 ​​লাখ মূল্যের হীরা দ্বারা খচিত। বুধবার বিকেলে রাধারাণীর পায়ে সিংহাসন তৈরি ও উৎসর্গ করা হয়। বৃহস্পতিবার রাধারানী নবনির্মিত সিংহাসনে বসে ভক্তদের আশীর্বাদ বর্ষণ করেন। এই সময়, মন্দিরটি একটি বিশাল ফুলের বাংলো দিয়ে সজ্জিত করা হবে। রাধারানী উপবিষ্ট হওয়ার খুশিতে মন্দির চত্বরের ভান্ডারের আয়োজন করা হবে দুদিন।




Source link

About sarabangla

Check Also

অঞ্জন দাস হত্যা মামলা দিল্লি পাণ্ডব নগর পুনম এবং দীপক তিনবার মৃতদেহ দেখতে গিয়েছিলেন

শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার মতোই আরেকটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা নাড়া দিয়েছে দেশের রাজধানী দিল্লিকে। পাণ্ডব নগরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *