Breaking News

অঞ্জন দাস হত্যা মামলা দিল্লি পাণ্ডব নগর পুনম এবং দীপক তিনবার মৃতদেহ দেখতে গিয়েছিলেন

শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার মতোই আরেকটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা নাড়া দিয়েছে দেশের রাজধানী দিল্লিকে। পাণ্ডব নগরে স্ত্রী পুনম দেবী এবং ছেলে দীপক স্বামী অঞ্জন দাসকে (৪৮) নৃশংসভাবে খুন করেছেন। হত্যার পর স্বামীর লাশ টুকরো টুকরো করে ফ্রিজে রাখা হয়। এরপর অভিযুক্তরা ধীরে ধীরে লাশের টুকরোগুলো ফেলে দিতে থাকে। পুলিশ জানায়, ৩০ মে রাতে অঞ্জনদাসকে খুন করা হয়। এরপর পুনম তার ছেলে দীপককে নিয়ে সারা রাত লাশ ঘরে রেখে দেয় যাতে সব রক্ত ​​বেরিয়ে আসে। পরদিন ছুরি দিয়ে লাশ টুকরো টুকরো করে, তারপর লাশের টুকরোগুলো প্লাস্টিকের ব্যাগে ভরে কয়েকদিন বিভিন্ন স্থানে ফেলে রাখা হয়। যে অস্ত্র দিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা এখনো খুঁজে পায়নি পুলিশ।

অন্যদিকে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত অঞ্জন দাসের তিন টুকরো ধড় ও হাত পায়নি পুলিশ। পূর্ব দিল্লির স্পেশাল স্টাফের একটি দল পাণ্ডব নগর থানার সাথে অশোক নগরের নোংরা ড্রেনের কাছে জঙ্গলে এবং তার আশেপাশে একটি দিনব্যাপী অনুসন্ধান অভিযান চালায়।

ফরেনসিক টিমের সঙ্গে ছিলেন পূর্ব জেলা পুলিশের আধিকারিকরা। পূর্ব জেলা পুলিশের কর্তারা জানিয়েছেন, আশেপাশের থানার সাহায্য নেওয়া হচ্ছে। অঞ্জন দাসের শরীরের বাকি অংশ খুঁজে বের করতে বুধবার অভিযানও চালানো হবে।

পূর্ব জেলা পুলিশ কর্মকর্তাদের মতে, পুলিশ এখন পর্যন্ত একটি মাথা, একটি হাতের একটি অংশ এবং পায়ের চারটি টুকরো খুঁজে পেয়েছে। অভিযুক্তরা অঞ্জনদাসের দেহ কেটে দশ টুকরো করেছিল। দুই হাত ও দুই পা দুই টুকরো করে কাটা হয়েছে।

পুলিশ আধিকারিকদের মতে, মৃতদেহের বাকি অংশের সন্ধানের জন্য মঙ্গলবার অভিযুক্তদের অশোক নগর জঙ্গলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কর্মকর্তাদের ধারণা, মনে হচ্ছে অঞ্জন দাসের শরীরের অবশিষ্ট টুকরোগুলো বন্য প্রাণী খেয়ে ফেলেছে। পুলিশ বলছে, স্থানীয় লোকজন এবং আরডব্লিউএ কর্মকর্তাদের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়া হচ্ছে।




Source link

About sarabangla

Check Also

এয়ার ইন্ডিয়া: চার মাস ফ্লাইটে একজন মহিলার সাথে খারাপ আচরণের জন্য এয়ারলাইন শঙ্কর মিশ্রকে নিষিদ্ধ করেছে

এয়ার ইন্ডিয়ার ফ্লাইটে মহিলার প্রস্রাব করার অভিযোগে গ্রেফতার শঙ্কর মিশ্র – ছবি: আমার উজালা এয়ার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *