Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: October 18, 2020 1:38 pm|    Updated: October 18, 2020 1:38 pm
অর্ণব আইচ: প্রতিবেশীর উপর হামলার প্রতিবাদের জের। বাড়িওয়ালার হাতে খুন হলেন যুবক। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে খাস কলকাতার (Kolkata) ট্যাংরা এলাকায়। ঘটনায় ইতিমধ্যেই ৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। খুনের অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়েছে।পূর্ব কলকাতা ট্যাংরা (Tangra) থানা এলাকার ডি সি দে রোডের বাসিন্দা মৃত ওই যুবকের নাম মনোজ রাম। তাঁর মা আরতি রামের অভিযোগ, বাড়িওয়ালার ছেলে রবি ও তারই পরিবারের সদস্য গুড়িয়া নামে এক মহিলাই খুন করেছে মনোজকে। কিন্তু ঠিক কী হয়েছিল শনিবার রাতে? প্রত্যক্ষদর্শীদের কথায়, পুরনো গোলমালের জেরে বাড়িওয়ালার ছেলে রবি এক ভাড়াটে সুনীল দাসকে আচমকা মারধর শুরু করে। সেই ঘটনার প্রতিবাদ করেন অপর ভাড়াটিয়া মনোজ।তাঁকে বাঁচানোর চেষ্টা করে। তখনই সুনীলকে ছেড়ে ওই যুবকের উপর হামলা করে রবি। অভিযোগ, ইট দিয়ে তাঁর মাথা থেঁতলে দেওয়া হয়। এরপরই ধারাল অস্ত্র দিয়ে মনোজের পেটে আঘাত করে অভিযুক্ত। রক্তাক্ত অবস্থায় ঘরে লুটিয়ে পডেন মনোজ। সেই সময়ই ঘটনাস্থল থেকে পালায় রবি।[আরও পড়ুন:  NIA আদালতে হাজিরা এড়াতে ‘ভুয়ো’ করোনা রিপোর্ট ছত্রধরের, গুরুতর অভিযোগ মান্নানের]তড়িঘড়ি প্রতিবেশীরা মনোজকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এরপরই খবর যায় পুলিশে। দেহ পাঠানো হয় ময়নাতদন্তে। রাতে ট্যাংরা থানার পুলিশ যায় ঘটনাস্থলে। মৃতার স্ত্রী লিখিত অভিযোগ করলে অভিযুক্তদের খোঁজে শুরু হয় তল্লাশি। পুলিশ সূত্রে খবর, কিছুক্ষণের মধ্যেই অনিল দাস, রবি দাস, সুনীল দাস, বাদামিয়া দাস, সঞ্জয় দাস, অশোক দাস, বেবি দাস নামে মোট ৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরেই সুনীলকে ঘর ছাড়তে বলছিল বাড়িওয়ালা। কিন্তু তাতে রাজি হননি তিনি। সেই নিয়েই শনিবার অশান্তির সূত্রপাত বলেই দাবি প্রতিবেশীদের। যদিও নেপথ্যে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। [আরও পড়ুন:  কোভিডের অজুহাতে ঘরে বসে থাকা যাবে না, বামফ্রন্টের শতবর্ষে কর্মীদের কড়া বার্তা বিমানের]

Source link

Comments

comments