হাইলাইটসসম্প্রতি আসানসোলের বিশিষ্ট সমাজকর্মী চন্দ্রশেখর কুণ্ডুও যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে।এবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুরে সাড়ে চারশোর বেশি বিজেপি কর্মী যোগ দিলেন রাজ্যের শাসকদলে।অবশ্য শুধু দক্ষিণ ২৪ পরগনা কেন, বেশ কয়েক মাস ধরেই তৃণমূলে যোগদানের প্রবণতা উত্তোরত্তর বাড়ছে। এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: গত ২১ জুলাই তৃণমূলের ভার্চুয়াল শহিদ দিবস। আগামী বিধানসভা নির্বাচনের জন্যে পুরোদস্তুর প্রস্তুতির লক্ষ্যে দলত্যাগী নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বার্তা দিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে বলেছিলেন, ‘ভুল করে যদি কেউ বিজেপিতে গিয়ে থাকেন, তাহলে তৃণমূলে ফিরে আসুন। কেউ যদি কংগ্রেস বা সিপিএমে গিয়ে থাকেন, তাঁরাও ফিরে আসুন। মানুষের জন্যে যদি কাজ করতে চান, তাহলে তৃণমূলেই একমাত্র সেই সুযোগ পাবেন।’ তৃণমূল নেত্রীর সেই ডাকের আগে থেকেই অবশ্য বিজেপি-সহ অন্যান্য দলে ভাঙন বাড়ছিল। সম্প্রতি আসানসোলের বিশিষ্ট সমাজকর্মী চন্দ্রশেখর কুণ্ডুও যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে। এবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুরে সাড়ে চারশোর বেশি বিজেপি কর্মী যোগ দিলেন রাজ্যের শাসকদলে।রবিবার সকালে ক্যানিং বাসস্ট্যান্ডে একটি ছোট পথসভার আয়োজন করে শাসক দল। উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য তপন সাহা, সুশীল সরদার। সেখানেই ক্যানিং ১ নম্বর ব্লকের গোপালপুর, নিকারিঘাটা, মাতলা ১, তালদি এবং বাঁশড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বহু বিজেপি কর্মী যোগ দেন তৃণমূলে। বিজেপির দলত্যাগী ওই কর্মীদের বক্তব্য, বাংলার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করছে বিজেপি। মানুষের জন্যে কাজ করতে আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নযজ্ঞে সামিল হতেই এই দলত্যাগ বলে দাবি করেছেন তাঁরা। তৃণমূলের দাবি, জেলার আরও কয়েক হাজার বিজেপি কর্মী তৃণমূলে আসার অপেক্ষায় রয়েছেন। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সোনারপুরেরও বহু বিজেপি কর্মী তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন।অবশ্য শুধু দক্ষিণ ২৪ পরগনা কেন, বেশ কয়েক মাস ধরেই তৃণমূলে যোগদানের প্রবণতা উত্তোরত্তর বাড়ছে। যে জঙ্গলমহল গত লোকসভা ভোটে তৃণমূলের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল, সেই জঙ্গলমহলের পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুরেও বিগত কয়েক মাসে গেরুয়া শিবির ছেড়ে ঘাসফুল শিবিরে যোগদানের প্রবণতা বেড়ে গিয়েছে কয়েক গুণ। পুরুলিয়ার ঝালদা, বাগমুণ্ডি, রঘুনাথপুরের মতো এলাকা থেকে দলেদলে বিজেপি নেতাকর্মীরা যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলে। আবার পশ্চিম মেদিনীপুরের গড়বেতা এলাকাতেও শক্তি বাড়াচ্ছে রাজ্যের শাসকদল। গত শুক্রবার সমাজকর্মী চন্দ্রশেখর কুণ্ডুর সঙ্গে প্রায় ৫৫০ জন কংগ্রেস কর্মীও তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। বাঁকুড়ার কংগ্রেস নেতা অরুণ পাঠকের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক কংগ্রেস কর্মীর এই যোগদানে লোকসভা ভোটে যে বাঁকুড়াতে কার্যত উড়ে গিয়েছে তৃণমূল, সেখানে কিছুটা হলেও মাটি শক্ত করল তাঁরা।আরও পড়ুন: গরিবের ‘ফুডম্যান’ তিনি, মানুষের পাশে থাকতে তৃণমূলে যোগ সমাজকর্মী চন্দ্রশেখর কুণ্ডুর!আবার দিনকয়েক আগেই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফিরে এসেছেন দক্ষিণ দিনাজপুরের প্রাক্তন জেলা তৃণমূল সভাপতি বিপ্লব মিত্র। BJP-তে যোগ দেওয়ার এক বছরের মধ্যেই ‘ঘর ওয়াপসি’ করলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের প্রভাবশালী নেতা বিপ্লব মিত্র (Biplab Mitra)। ফের একবার দলীয় পতাকা তুলে দেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বর্ষীয়ান নেতার তৃণমূলে ফেরার খবরে উচ্ছ্বসিত তাঁর অনুগামীরাও।এই সময় ডিজিটাল এখন টেলিগ্রামেও। সাবস্ক্রাইব করুন, থাকুন সবসময় আপডেটেড। জাস্ট এখানে ক্লিক করুন।

Source link

Comments

comments