Controversy over TMC candidate Tapan Dasgupta’s comment into election campaign |SangbadPratidin

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 7, 2021 1:19 pm|    Updated: March 7, 2021 1:37 pm
সারাবাংলা ডেস্ক: প্রার্থী হয়ে প্রথম প্রচারে বেরিয়েই বিতর্কের মুখে পড়লেন হুগলির সপ্তগ্রামের তৃণমূলের (TMC) তপন দাশগুপ্ত (Tapan Dasgupta)। রাজ্যের প্রাক্তন কৃষি বিপণন মন্ত্রী ছিলেন। শনিবার তপন দাশগুপ্ত প্রচারে বেরিয়ে বার্তা দেন, ভোট না পড়লে এই এলাকায় জলও পৌঁছবে না। তাঁর এহেন মন্তব্য নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে সমালোচনা। একে হাতিয়ার করে বিজেপি আসরে নেমেছে। গেরুয়া শিবিরের নেতাদের কথায়, হতাশা থেকেই এমন মন্তব্য।বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে (WB Assembly Election) শুক্রবারই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হয়েছে তৃণমূলের। এবারও হুগলির (Hooghly) সপ্তগ্রাম থেকে লড়ছেন রাজ্যের কৃষি বিপণন মন্ত্রী তপন দাশগুপ্ত। কিন্তু প্রচারে বেরিয়েই তিনি জড়ালেন বিতর্কে। শনিবার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে, তিনি ভোটপ্রচারের সময়ে বলছেন, ”যেখানে ভোট পড়বে না, সেখানে দেখব। জলও পৌঁছবে না সেখানে। কিচ্ছু হবে না। এরপর সব বিজেপিকে দিয়ে করাবেন।” তাঁর এই বক্তব্যে স্পষ্টতই ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাসিন্দারা। [আরও পড়ুন:  ব্রিগেডে মোদির সভার আগেই নদিয়ায় গুলিবিদ্ধ বিজেপি নেতা, ভাঙড়ে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ]সপ্তগ্রামের তৃণমূল প্রার্থীর ভোটপ্রচারের এই ভিডিও নিয়ে আপাতত শুরু হয়ে গিয়েছে চাপানউতোর। বিজেপি নেতাদের দাবি, তপন দাশগুপ্ত লড়াকু, সংগ্রামী নেতা। রাজ্যের মন্ত্রীও ছিলেন। তাঁর মুখে এ ধরনের কথা মানায় না। এবারের ভোটে জিতবেন না জেনেই এ ধরনের হুমকি দিয়ে কাজ হাসিল করতে চাইছেন তৃণমূল প্রার্থী। আবার কংগ্রেসের বক্তব্য, তৃণমূল নেতাদর সংস্কৃতিই এরকম। হুমকির মাধ্যমেই তাঁরা ভোটে জেতেন। প্রচারে বেরিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য এবং তাতে বিরোধীদের সমালোচনা নিয়ে প্রার্থী তপন দাশগুপ্তর কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি এখনও। তবে তাঁর এ ধরনের বক্তব্য যে ভোট প্রচারকালে দলকে বিড়ম্বনায় ফেলল, তা বলাই যায়।[আরও পড়ুন:  ‘নন্দীগ্রামে জিতবে শুভেন্দু, প্রয়োজনে প্রচারে যাব’, ছেলের পাশে শিশির অধিকারী] Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপনিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে Follow।সব খবরের আপডেট পান সংবাদ প্রতিদিন-এLikeDownload

Source link

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *