হাইলাইটসরবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনও জানিয়েছেন, জুলাই মাস থেকে বাংলায় করোনার গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের দুশ্চিন্তা, এখনই এমন হলে পুজোর পর কী দাঁড়াবে পরিস্থিতি?নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯৮৩ জন মানুষ। গতকালের চেয়ে যা অনেকটাই বেশি এবং অতি অবশ্যই নতুন রেকর্ড। এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: প্রতিদিন রেকর্ড। এ রেকর্ড শুধুই আশঙ্কার। আসলে পুজো যত এগিয়ে আসছে, ততই যেন বাংলায় থাবা চওড়া হচ্ছে করোনার। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বলে দিয়েছেন, করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। গোষ্ঠী সংক্রমণও হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়। এমনকী রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনও জানিয়েছেন, জুলাই মাস থেকে বাংলায় করোনার গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে। অথচ কিছুদিন আগে পর্যন্তও চিত্রটা ছিল আলাদা। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একটু একটু করে জয়ের পথে এগিয়ে চলেছিল পশ্চিমবঙ্গ। সম্প্রতি সেই চিত্রটাই সম্পূর্ণ পালটে গিয়েছে। বাংলায় করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বর্তমানে যে হারে বাড়ছে, তাতে এখন থেকেই মারাত্মক বিপদের আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা। বিশেষজ্ঞদের দুশ্চিন্তা, এখনই এমন হলে পুজোর পর কী দাঁড়াবে পরিস্থিতি? এমনকী বারবার বলা সত্বেও পুজোর কেনাকেটাতেও ব্যাপক ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্টও রীতিমতো শিহরণ জাগানো। রবিবারের (১৮ অক্টোবর) বুলেটিন অনুযায়ী, নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯৮৩ জন মানুষ। গতকালের চেয়ে যা অনেকটাই বেশি এবং অতি অবশ্যই নতুন রেকর্ড। একইসঙ্গে মৃত্যু হয়েছে নতুন করে আরও ৬৪ জনের। তবে আশার আলো বলতে, রাজ্যে এখনও সুস্থতার হার ৮৭.৫৫ শতাংশ। কিন্তু সেই সুস্থতার হারও ধীরেধীরে কমছে। তবে, রাজ্যের সুস্থতার হার জাতীয় গড়ের তুলনায় এখনও পর্যন্ত বেশ কিছুটা বেশি। বাংলায় সুস্থতার হার নিয়ে গত সেপ্টেম্বর মাসেই সন্তোষ প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যদিও বাংলায় মৃত্যুর পরিসংখ্যান এখনও বিশেষজ্ঞদের মাথাব্যথার কারণ। এই মৃত্যু মিছিল রোধে প্রয়োজনীয় সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কেন্দ্রের তরফেও রাজ্যকে নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।রাজ্যের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দফতরের সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী, রবিবার পর্যন্ত বাংলায় অ্যাক্টিভ বা বর্তমান আক্রান্তের সংখ্যা মাত্র ৩৩ হাজার ৯২৭ জন। এখনও পর্যন্ত গোটা রাজ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লক্ষ ৮১ হাজার ০৫৩ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা-মুক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ১১৩ জন। সুস্থতার হার বর্তমানে ৮৭.৫৫ শতাংশ।মারণ ভাইরাসের কামড়ে রাজ্যে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ০৫৬ জনের। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ৬৪ জন। শুধু কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনায় এই সংখ্যাটা ১৩ ও ১৭ জন করে। এছাড়া হাওড়া, হুগলি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান, নদীয়া, বীরভূম, মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর, জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলা থেকে নতুন করে করোনা আক্রান্তদের মৃত্যুর খবর পাওয় গিয়েছে।আরও পড়ুন: ১৭ দিনে আক্রান্ত ১.৩৫ লক্ষ! উৎসব-আনন্দের দাম চোকাচ্ছে কেরালা, বুঝবে বাংলা?অপরদিকে, ভারতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে ৭৫ লক্ষের দোরগোড়ায়। যদিও এর মধ্যে সুস্থতার সংখ্যা অনেকটাই বেশি থাকায় স্বস্তির আবহ দেখা দিয়েছে। তবে দু’সপ্তাহের ব্যবধানে দেশে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ফের হাজার ছাড়িয়ে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬১,৮৭১। একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১,০৩৩ জনের। যদিও একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭২,৬১৪ জন। রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৪,৯৪,৫৫১। যার মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬৫,৯৭,২০৯ জন। মৃতের সংখ্যা ১,১৪,০৩১। অর্থাৎ, দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭,৮৩,৩১১।এই সময় ডিজিটাল এখন টেলিগ্রামেও। সাবস্ক্রাইব করুন, থাকুন সবসময় আপডেটেড। জাস্ট এখানে ক্লিক করুন।

Source link

Comments

comments