হাইলাইটসদিলীপ ঘোষের ফুসফুসে সংক্রমণসংক্রমণের গভীরতা জানতে থ্রোক্স সিটি স্ক্যানরিপোর্ট পাওয়ার পরেই পরবর্তী চিকিত্‍‌সাকরোনায় আক্রান্ত হয়ে শুক্রবার তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন তাঁর কোনও কো-মরবিডিটি নেইএই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আক্রান্ত বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ফুসফুসে সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। কিন্তু, সেই সংক্রমণ কতটা ছড়িয়েছে, তা চিকিত্‍‌সকেরা জানতে পারেননি। শনিবারও তাঁর থ্রোক্স সিটি স্ক্যান করা হয়। সেই রিপোর্ট হাতে না-পাওয়া পর্যন্ত দিলীপ ঘোষের স্বাস্থ্য নিয়ে চিকিত্‍সকদের মধ্যে উদ্বেগ রয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেলেই চিকিত্‍সার পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করা হবে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে।শুক্রবার রাতে বাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন দিলীপ ঘোষ। জ্বর নিয়েই রাতেই বিজেপির রাজ্য সভাপতিকে সল্টলেকের আমরি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে আমরি সূত্রে জানানো হয়েছিল, বিজেপির রাজ্য সভাপতি কোভিড পজিটিভ। শনিবার চিকিত্‍সকরা জানান, দিলীপ ঘোষ ভালো আছেন। তাঁর কোনও কো-মরবিডিটি নেই। রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণও স্বাভাবিক। ফলে, কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন ডাক্তাররা। নর্মাল ডায়েট দেওয়া হয়। কিন্তু, পরে জানা যায় করোনা আক্রান্ত দিলীপ ঘোষের ফুসফুসে একটা সংক্রমণ দেখা গিয়েছে।হাসপাতালে ভর্তির আগে কয়েক দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন দিলীপ ঘোষ। ক্রমশ শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। গায়ে জ্বরও ছিল। ফলে দিলীপ ঘোষের করোনা পরীক্ষা করা হয়। শুক্রবার বিজেপি রাজ্য সভাপতির কোভিড-১৯ টেস্ট রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এর পরেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে সল্টলেকের আমরি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।রাজ্য বিজেপি প্রধানের দ্রুত সুস্থতা কামনা করে টুইট করেছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। করোনা আক্রান্ত বিজেপির রাজ্য সভাপতির সুস্থতা কামনায় এদিন পুরুলিয়ায় যজ্ঞ করেছেন দলীয় কর্মীরা। রবিবার আবার দলের রাজ্য দফতরের সামনে যজ্ঞ হবে বলে দলীয় সূত্রে খবর। আরও পড়ুন:করোনা পজিটিভ হয়ে ফের হাসপাতালে নির্মল মাজিগত কয়েক মাসের মধ্যে বঙ্গ বিজেপির একাধিক শীর্ষ নেতা-নেত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অগ্নিমিত্রা পল, অনুপম হাজরা-সহ একাধিক বিজেপি শীর্ষ নেতা ভাইরাস সংক্রমণের শিকার হন। কয়েক দিন আগে নবান্ন অভিযানে অংশ নেন বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনিও করোনা আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে একটি হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন রয়েছে। তার পরেই দিলীপ ঘোষের অসুস্থতার খবর সামনে আসে।আরও পড়ুন: ভোটের সূত্র মেনেই গোটা দেশে ভ্যাকসিন বিতরণ! টোটকা মোদীরএদিকে, রাজ্যে করোনায় অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা শনিবার (১৭ অক্টোবর) ৩৩ হাজার ছাড়িয়ে গেল। সেইসঙ্গে কোভিডে মৃত্যুর সংখ্যাও ৬ হাজার ছুঁতে চলেছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দফতরের এদিনের রিপোর্ট অনুযায়ী, অ্যাক্টিভ আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ৩৩,১২১ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে অ্যাক্টিভ রোগী বেড়েছে ৬২১ জন।বিগত কয়েক দিনের ধারাবাহিকতায় ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নতুন ৩,৮৬৫টি পজিটিভ কেস ধরা পড়েছে। উলটো দিকে, একদিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ৩,১৮৩ জন। কিন্তু, ধারাবাহিক ভাবে দৈনিক সুস্থতার থেকে নতুন পজিটিভ কেসের সংখ্যা বেশি হওয়ায়, রাজ্যে অ্যাক্টিভ আক্রান্ত বাড়ছে। নতুন সংক্রমণে যেমন রাশ টানা যাচ্ছে না, তেমনি রোজ গড়ে ৬০-এর আশপাশে মৃত্যু হচ্ছে। শনিবারের রিপোর্টেও আরও ৬১ জনের মৃত্যুর কথা বলা হয়েছে। সবমিলিয়ে রাজ্যে এ পর্যন্ত করোনার বলি ৫,৯৯২ জন। রবিবার সকালের মধ্যেই সরকারি ভাবে মৃতের সংখ্যা ৬ হাজারের গণ্ডি অতিক্রম করবে।এই সময় ডিজিটাল এখন টেলিগ্রামেও। সাবস্ক্রাইব করুন, থাকুন সবসময় আপডেটেড। জাস্ট এখানে ক্লিক করুন।

Source link

Comments

comments