durga visarjan 2020: সিঁদুর খেলা মানেই চিরাচরিত লালপাড়-সাদা শাড়ি, কেন জানেন? – durga visarjan dress code

হাইলাইটসপুজোর অন্যতম অংশ হল এই সিঁদুর খেলা। একে অপরের সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে স্বামী ও পরিবারের মঙ্গলকামনা করেন। আর সেই সিঁদুরই বাড়িতে থেকে যায় বছরভরএই সময় জীবনযাপন ডেস্ক: দেখতে দেখতেই কেটে গেল পুজোর পাঁচটা দিন। রাত পোহালেই বাপের বাড়ি ফিরে যাবে উমা। আবার এক বছরের প্রতীক্ষা। তবে এবারের পুজো অন্য বছরগুলোর তুলনায় একটু ভিন্ন। সাত মাসেরও বেশি সময় ধরে গৃহবন্দি মানুষ। সেই সঙ্গে বেড়েছে করোনার আতঙ্ক। এবছর পুজো হলেও সবার মুখের হাসিটা আগের মতো নেই। পুজো প্যান্ডেলেও ছিল বহু রকম বিধিনিষেধ। অঞ্জলি থেকে প্যান্ডেল হপিং সবই এবার বাতিলের তালিকায়। এমনকী ভোগ খাওয়া, সিঁদুর খেলা, দলবেঁধে বিসর্জনে যাওয়া সেসবও এবার নেই। দশমীর ঘট বিসর্জনের পর উমার শ্বশুরবাড়ি ফিরে যাওয়ার পালা। তার আগে চলে বরণ। সিঁদুর-আলতা-পান-সুপুরিতে বাড়ির মেয়েরা বরণ করে নেয় উমাকে। আর তার পর বিবাহিত মেয়েরা মেতে ওঠেন সিঁদুর খেলায়। পুজোর অন্যতম অংশ হল এই সিঁদুর খেলা। একে অপরের সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে স্বামী ও পরিবারের মঙ্গলকামনা করেন। আর সেই সিঁদুরই বাড়িতে থেকে যায় বছরভর। মাকে মিষ্টিমুখ করিয়ে তবেই বাকিরা মিষ্টি খান। আর প্রতিমা বরণের ক্ষেত্রে সেই আদ্যিকাল থেকেই লালপাড় সাদা শাড়িতে সেজে আসছেন মহিলারা। সঙ্গে মানানসই সোনার গয়না। একেবারে সাবেকি সাজ। অন্য সব দিন পুজোর সাজে আধুনিকতার ছোঁওয়া থাকলেও দশমী কিন্তু একেবারেই ট্র্যাডিশন্যাল। ছেলেরা সাদা ধুতি-পাঞ্জাবি অথবা কুর্তা-পায়জামা। আর মেয়েরা শাড়ি। লালপাড় সাদা শাড়ি, লাল ব্লাউজ, সিঁথি ভরতি সিঁদুর আর গয়নায় এদিন প্রত্যেকেই হয়ে ওঠেন দশভুজা। পৃথিবীর যে প্রান্তেই পুজো হোক না কেন দশমীর এই সাজে কোনও অদল-বদল নেই। আর বরণের সময় অবশ্যই মাথায় থাকে ঘোমটা। বিজয়া মানেই লালপাড় সাদা শাড়ি আর সিঁদুর খেলা এখন একেবারেই সামাজিক পরবে পরিণত হয়েছে। সিঁদুর পরিয়ে দেবীর কাছে প্রার্থনা করে মেয়েরা বলেন, সর্বলোকের রঞ্জন পরমসৌন্দর্যযুক্ত সিন্দুর তিলক তোমার কপালকে মণ্ডিত করুক। মাকে বরণের পর রাজ-শুভশ্রীভবিষ্য পুরাণে বলা হয়েছে, সিঁদুর স্বয়ং ব্রহ্মার প্রতীক। বিবাহিত নারী সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে পরম ব্রহ্মকেই আহ্বান করে। গীতাতেও কাত্যায়নী ব্রত উপলক্ষ্যে গোপিনীদের সিঁদুর খেলার বিবরণ পাওয়া যায়। কিন্তু তা অবশ্যই কৃষ্ণের মঙ্গল কামনায়। মনে করা হয় পরমব্রহ্ম সংসারের সকল দুঃখ কষ্ট দূর করেন। দেবী রূপে মা পুজো পেলেও যখন তিনি বিদায় নেন, তখন ঘরের মেয়ে। আর এই বরণের সময় নতুন বস্ত্র পরতে পারলে সবচেয়ে ভালো। নইলে অবশ্যই শুদ্ধ বস্ত্র পরতে হয়। বরণ শেষে নুসরত এই সময় ডিজিটালের লাইফস্টাইল সংক্রান্ত সব আপডেট এখন টেলিগ্রামে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন এখানে।

Source link

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *