শুষ্ক এবং ড্যামেজ চুল আপনার চুল যদি শুষ্ক ও ড্যামেজ হয়, তাহলে বুঝতে হবে যে আর্দ্রতার অভাব রয়েছে। এক্ষেত্রে আপনার চুলের জন্য হাইড্রেটিং হেয়ার মাস্ক উপযুক্ত। এতে আপনার চুলের পুষ্টি বাড়বে পাশাপাশি শুষ্কতা দূর হবে। হেয়ার মাস্ক ব্যবহারের ফলে চুলের বৃদ্ধিও ভাল হয়। আপনি কন্ডিশনার এবং গ্লিসারিন যুক্ত মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। কোঁকড়ানো চুল কোঁকড়ানো চুল সাধারণত ড্রাই হয়। এজন্য কোঁকড়ানো চুলের জন্য হেয়ার মাস্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সপ্তাহে একবার অন্তত হেয়ার মাস্ক লাগানো উচিত। এতে চুল উজ্জ্বল হয়। এক্ষেত্রে ড্যামেজ রিপিয়ার রিকন্সট্রাকশন হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। পাতলা চুল পাতলা চুলের জন্য লাইট ওয়েট হাইড্রেটিং জোজোবা অয়েল উপযুক্ত। আপনার পাতলা চুল যদি বেশি শুষ্ক হয়, তবে আপনি হেয়ার কন্ডিশনার মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। পাতলা চুলে পুষ্টি জোগাতে আপনি নারকেল তেলও ব্যবহার করতে পারেন। অয়েলি হেয়ার অয়েলি হেয়ারের যত্ন নেওয়া একটু কঠিন। এই ধরনের চুলে আর্দ্রতার প্রয়োজন হয় না। এক্ষেত্রে আপনি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যুক্ত হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও চুলের গোড়ায় নারকেল তেল লাগান এবং গরম জলে তোয়ালে ভিজিয়ে নিঙড়ে মাথায় জড়িয়ে রাখুন। আধ ঘণ্টা পরে, শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এতে করে আপনার চুল ভাল থাকবে। চুলের যত্নে ব্যবহার করুন আমলকির রস, দেখুন ব্যবহারের পদ্ধতি

Source link

Comments

comments