হাইলাইটসহালিম আমাদের দক্ষিণ এশিয়ার একটা এত জনপ্রিয় খাবার। বিশেষ করে রোজা’র মাসে, সারা দিন উপোসের পর প্লেট পুরে খাওয়া মাংস আর ডাল। আর খানদানি বা যেমন-তেমন দোকানের বাইরে বিশাল হান্ডিতে তো পাবেনই। ‘হালিম’ শব্দটির অর্থ শান্ত, সহিষ্ণু। শুরুর দিকে আগের রাতে গম ভিজিয়ে রাখা হত।এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: হালিম আমাদের দক্ষিণ এশিয়ার একটা এত জনপ্রিয় খাবার। বিশেষ করে রোজা’র মাসে, সারা দিন উপোসের পর প্লেট পুরে খাওয়া মাংস আর ডাল। আর খানদানি বা যেমন-তেমন দোকানের বাইরে বিশাল হান্ডিতে তো পাবেনই। ‘হালিম’ শব্দটির অর্থ শান্ত, সহিষ্ণু। শুরুর দিকে আগের রাতে গম ভিজিয়ে রাখা হত। পরদিন গমের সঙ্গে মাংস দিয়ে রান্না করা হত। হালিমের নামেরও পরিবর্তন হয়েছে। আরবিতে একে বলা হয় হারিস। পরে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় এসে তার নাম হয় হালিম। হারিসের অর্থ মিশ্রণ। শব্দটির প্রথম উল্লেখ পাওয়া যায় ‘কিতাব-আল-তাবিখ’ গ্রন্থে। দশম শতাব্দীতে বইটি লেখেন ইবনে সায়ার আল ওয়ারক।আরব থেকে হালিম দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া হয়ে এসে পৌঁছয় ভারতবর্ষে। প্রাচীন কালে সারা রাত ধরে ভিজিয়ে রাখা গম পরদিন মাংস, ভেড়ার চর্বি বা মাখনে নিভু আঁচে ফোটানো হত। পরে তা ছেঁকে অবশিষ্ট মিশ্রণ পিষে ফেলা হত। নুন মিশিয়ে পরিবেশন করা হত দারচিনি, ঘি আর চিনি দিয়ে! আরব ও ইয়েমেন থেকে ভারতে এসেছিলেন ব্যবসায়ীরা। ঢিমে আঁচে বেশিক্ষণ ধরে রান্না করাই হল হালিম তৈরির ঠিক পদ্ধতি। সাত-আট ঘণ্টা তো বটেই, কখনও তার বেশি সময়ও লাগে। হায়দরাবাদি হালিম রান্না করতে প্রয়োজন বিফ অথবা মাটন। গম, বার্লি, ডাল সারা রাত ভিজিয়ে রেখে দিতে হয়। পরদিন হাঁড়িতে মশলা মাখিয়ে মাংস রান্না করতে হয়। অন্য দিকে বিশাল বড় হাঁড়িতে সিদ্ধ বসানো হয় ভিজিয়ে রাখা ডাল-গম ইত্যাদি। মাংস রান্না হয়ে এলে গ্রেভি মেশানো হয় হাঁড়িতে। এই বছর কঠিন পরিস্থিতিতে বাড়িতেই তৈরি করে নিন হালিম-ভিডিয়োটি দেখতে ক্লিক করুনউপকরণমশলার উপকরণতেজপাতা-১টি, শুকনো লঙ্কা-৪টে, স্টার অ্যানিস-১টা, বড় এলাচ-১টা, ছোট এলাচ-৫টা, গোলমরিচ-১০টা, জায়ফল-১/৮ ভাগ, জৈত্রী-২ টুকরো, দারচিনি-২টো ছোট, জিরে-আধ চা চামচ, ধনে-আধ চা চামচ, মৌরি-আধ চা চামচ। মশলাগুলো শুকনো খোলায় ভেজে নিয়ে এক চামচ বিটনুন মিশিয়ে ভালো করে গুঁড়ো করে নিন।গম-১/৪ কাপ গম, অরহর ডাল-১/৪ কাপ, ছোলার ডাল-১/৪ কাপ গম, মুসুর ডাল-১/৪ কাপ, বিউলির ডাল-১/৪ কাপ, মুগ ডাল-১/৪ কাপ, গোবিন্দ ভোগ চাল-১/৪ কাপ সব শস্যগুলো একসঙ্গে শুকনো খোলায় ভেজে নিয়ে ভালো করো গুঁড়ো করে নিন।তেল-১ কাপ, পেঁয়াজ কুঁচি-২ কাপ, পেঁয়াজ বাটা-১/২ কাপ, টমেটো কুঁচি-আধ কাপ, আদা ও রসুন বাটা-২ চামচ, শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো-১ চামচ, জিরে গুঁড়ো-১ চামচ, চিকেন-১ কেজি, রসুন কুঁচি-৫ কোয়া, হলুদ গুঁড়ো-১ চামচপদ্ধতিপ্রথমে একটি পাত্রে ১ লিটার জল গরম করে নিন। ওই গরম জলে সমস্ত গুঁড়ো করা শস্য দিয়ে দিন। পাত্রটি ঢেকে রেখে ৩০ মিনিট পর্যন্ত। অন্য পাত্রে তেল গরম হলে তাতে পেঁয়াজ কুঁচি,রসুন কুঁচি দিয়ে দিন। বাদামি হয়ে এলে আলাদা করে তুলে নিন। এর পর ওই তেলেই পেঁয়াজ বাটা, টমেটো কুঁচি দিয়ে ভালো করে কষাতে থাকুন। এর পর আদা-রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়ো, শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো, নুন দিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিন। এর পর চিকেনটা দিয়ে কষাতে থাকুন। এর পর ১ চামচ আগে থেকে তৈরি করা হালিমের মশলা দিয়ে দিন। ১৫ মিনিট পর ভিজিয়ে রাখা ডাল-চাল-গমের মিশ্রণটা দিয়ে দিন। এর পর ২ কাপ গরম জল দিয়ে ঢেকে দিন। মাঝে মাঝে পাত্রের ঢাকনা খুলে নাড়তে থাকুন যাতে পাত্রের নীচে লেগে না যায়। ২০ মিনিট পরই তৈরি হয়ে যাবে হালিম। উপরে বেরেস্তা দিয়ে পরিবেশন করুন বাড়ির তৈরি হালিম যা রেস্তোরাঁকেও টেক্কা দিয়ে দেবে। এই সময় ডিজিটালের লাইফস্টাইল সংক্রান্ত সব আপডেট এখন টেলিগ্রামে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন এখানে।

Source link

Comments

comments