শসা শসার টুকরো দিয়ে ঠাণ্ডা সেঁক দিন। শসাতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট চোখের ফোলাভাব হ্রাস করতে পারে। তাই, দুই চোখের উপর বেশ কিছুক্ষণ কাটা শসার টুকরো রাখুন। এর পরে চোখ ধুয়ে ফেলুন। কোল্ড টি ব্যাগও ব্যবহার করতে পারেন। আলু ডার্ক সার্কেল কমাতে আলু খুবই সহায়ক। আলুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন থাকে যা কোলাজেন বাড়াতে কাজ করে। তাই চোখের তলার কালি তুলতে আলুর রস প্রয়োজন। আলুর রসে কটন প্যাড ভিজিয়ে চোখের নীচে প্রায় ১০ মিনিট রাখুন। দেখবেন স্পট অনেকটাই কমে আসবে। চোখের ম্যাসাজ চোখের ম্যাসাজ করলে ডার্ক সার্কল কমে। ম্যাসাজের ফলে ব্লাড সার্কুলেশন বাড়ে, যার কারণে ত্বক উজ্জ্বল এবং ফ্রেশ হয়। গোলাপ জল ত্বক সতেজ রাখার পাশাপাশি গোলাপজল ডার্ক সার্কেল কমাতেও খুব সহায়ক। গোলাপজলে তুলো ভিজিয়ে আপনার চোখে ১৫ মিনিট রেখে তারপর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি নিয়মিত করুন এক মাস ধরে, দেখবেন ডার্ক সার্কল অনেকটা কমেছে। ঠান্ডা দুধ ঠান্ডা দুধের ব্যবহার ডার্ক সার্কল দূর করে। ঠান্ডা দুধে তুলো ভিজিয়ে চোখের নীচে কালিতে গান। ১০ মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। টমেটো এবং লেবু টমেটো ত্বককে নরম করার পাশাপাশি এবং চোখের তলার কালি কমাতে খুবই কার্যকর। টমেটোর রস নিন এবং তাতে এক চামচ লেবুর রস মেশান। এই মিশ্রণটি আপনার চোখে লাগান। ১০ মিনিট রেখে তারপর ধুয়ে ফেলুন। উপকার পাবেন। কেন রাতে মুখ পরিষ্কার করে ঘুমোতে যাওয়া উচিত? দেখে নিন এর কারণগুলি

Source link

Comments

comments