Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 18, 2020 6:24 pm|    Updated: October 18, 2020 6:24 pm
নব্যেন্দু হাজরা: নিউ নর্মালে সওয়ারিদের জন্য দফায় দফায় গাইডলাইন ঘোষণা করেছিল কলকাতা মেট্রো (Kolkata Metro)। কোভিড পরিস্থিতিতে যাত্রী সুরক্ষার পাশাপাশি স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রেখে বেশ কয়েকবার নিয়মকানুনও বদলেছে। এবার উৎসবের মরশুমে মেট্রো যাত্রীদের জন্য আরেকদফা নতুন নির্দেশিকা দিল মেট্রো কর্তৃপক্ষ। আজই নয়া নির্দেশিকা জারি করে পুজোর (Durga Puja) দিনগুলোয় কীভাবে মেট্রোয় যাতায়াত করবেন যাত্রীরা, তা বিস্তারিত জানানো হয়েছে। রয়েছে বেশ কয়েকটি আবশ্যকীয় পদক্ষেপ। এগুলো লঙ্ঘন করলে আইন অনুযায়ী কড়া শাস্তির মুখে পড়তে হবে বলেও সতর্ক করেছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ।[আরও পড়ুন: পুলিশের ‘অমানবিক’ অত্যাচারে মৃত্যু পটাশপুরের বিজেপি কর্মীর, ফের বিস্ফোরক রাজ্যপাল]এবছর করোনা (Coronavirus) আবহে দুর্গোৎসবের আয়োজন, মেজাজ সবই একটু ভিন্ন। দর্শনার্থীদের ভিড় এড়াতে এবছর সারারাত মেট্রো চলবে না। শেষ মেট্রো রাত সাড়ে ১০টায় ছাড়বে দুই প্রান্তিক স্টেশন থেকে। এই ঘোষণা হয়েছে আগেই। তবে ওই দিনগুলোয় শুধু মেট্রোয় চড়ার সময় না, মেট্রো স্টেশনে প্রবেশ থেকে প্ল্যাটফর্মে অপেক্ষা করা, নির্দিষ্ট স্টেশনে নেমে বেরিয়ে যাওয়া পর্যন্ত প্রতিটি ধাপে মেনে চলতে হবে নতুন নিয়মগুলি। কী সেসব নিয়ম?প্রথমত, মাস্ক না পরে অথবা দায়সারাভাবে মাস্ক পরে কেউ যেন মেট্রোয় প্রবেশ না করেন।শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা অবশ্য কর্তব্য।কোভিড পজিটিভ কেউ যেন মেট্রোয় সওয়ার না হন, স্টেশনেও প্রবেশ করায় থাকছে নিষেধাজ্ঞা।স্টেশনে প্রবেশের আগে রেলওয়ের স্বাস্থ্য প্রতিনিধিদলকে দিয়ে প্রাথমিকভাবে পরীক্ষা করান, নাহলে মেট্রোয় উঠবেন না।যত্রতত্র থুতু ফেলবেন না, যা অন্যের ক্ষতি করতে পারে।স্টেশন চত্বর বা ট্রেনের ভিতরে এমন কিছু করবেন না, তা পরিবেশ অপরিচ্ছন্ন করবে।করোনা সংক্রমণ রুখতে রেলের নির্ধারিত কোনও নির্দেশিকা অমান্য করা চলবে না।মেট্রোর তরফে আরও বলা হয়েছে, উৎসবের দিনগুলোয় যাত্রীদের সুরক্ষার স্বার্থেই নতুন কয়েকটি নিয়ম যুক্ত করা হয়েছে এবং তা কঠোরভাবেই পালন করতে হবে। অন্যথায় অমান্যকারী যাত্রীকে রেলওয়ে আইনের ১৪৫, ১৫৩, ১৫৪ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে শাস্তি দেওয়া হবে। মোটা অঙ্কের জরিমানা বা জেল হতে পারে।[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত শ্রম দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী নির্মল মাজি, সামান্য উপসর্গ নিয়ে ভরতি মেডিক্যালে]

Source link

Comments

comments