Published by: Sayani Sen |    Posted: December 2, 2020 11:00 am|    Updated: December 2, 2020 11:05 am
নব্যেন্দু হাজরা: আগামী বছরই বিধানসভা নির্বাচন। সময় যত এগোচ্ছে, ততই চড়ছে পারদ। আপাতত নেতাকর্মীদের দলের বিরুদ্ধে ‘বিদ্রোহ’ নিয়ে অস্বস্তিতে তৃণমূল (TMC)। সেই পরিস্থিতিতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘প্যাক আপ’ লিখে আলোড়ন ফেলেছেন মদন মিত্র। আর তারপরই এবার সরকারি কমিটিতে পদ পেলেন তিনি। হলেন চেয়ারম্যান।মঙ্গলবার নবান্ন থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। ওই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী পরিবহণ দপ্তরের কর্মীরা স্বাস্থ্যসাথী-সহ অন্যান্য সরকারি প্রকল্পের সুযোগসুবিধা পাচ্ছেন কিনা তা খতিয়ে দেখতে একটি কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটিরই চেয়ারম্যান করা হয়েছে মদন মিত্রকে (Madan Mitra)। এছাড়াও কমিটিতে রয়েছেন ট্রান্সপোর্ট ডিরেক্টরেটের ডেপুটি ডিরেক্টর, এসটিএ’র ডেপুটি সেক্রেটরি, এছাড়া পরিবহণ সংস্থার কমিটিগুলির সদস্যরাও রয়েছেন।[আরও পড়ুন: অভিমান ভোলাতে শীলভদ্রের বাড়িতে জ্যোতিপ্রিয়, দেখা পেলেন না বিধায়কের]সদ্যই মন্ত্রিত্ব ত্যাগ করেছেন শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari)। তাঁর দলবদলের জল্পনায় সরগরম রাজনৈতিক মহল। কোচবিহার দক্ষিণের বিধায়ক মিহির গোস্বামী (Mihir Goswami) দলবদল করে নাম লিখিয়েছেন পদ্মশিবিরে। শীলভদ্র দত্ত, জটু লাহিড়ী সকলেই খানিক বেসুরো। ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোরের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করছেন তাঁরা। তার ফলে অস্বস্তিতে ঘাসফুল শিবির। আর এই প্রেক্ষাপটে প্যাক আপ লিখে ফেসবুকে পোস্ট করেন মদন মিত্র। এরপর সোমবার মুখ খোলেন তিনি। একাধিক ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেন মদন মিত্র। আকারে ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দেন আগামী বছর নির্বাচনের আগে দলের উচিত তাঁকেও আপন করে নিয়ে বিশেষ পদ দেওয়ার। কারণ দলের জন্য যেমন তিনি পরিচিতি পেয়েছেন, তেমনই তিনিও এই দলকে অনেক কিছু দিয়েছেন। অনেক জয় এনে দিয়েছেন। দলের সঙ্গে কখনও বিশ্বাসঘাতকতা করেননি। ভবিষ্যতেও করবেন না। আর এই মন্তব্যের পরই এবার সরকারি পদ পেলেন মদন মিত্র। পরিবহণ দপ্তরের কর্মীদের জন্য তৈরি বিশেষ কমিটির চেয়ারম্যান করা হল তাঁকে।[আরও পড়ুন: অতর্কিতে হামলার ডাক, পুরুলিয়ায় উদ্ধার মাওবাদী প্রচারপত্রের বার্তায় মাথায় হাত যৌথ বাহিনীর]

Source link

Comments

comments