Category Archives: ওপার বাংলা

লালমনিরহাটে বোরকা পরে পূজামণ্ডপে নারী, এলাকাজুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: স্বপ্নাদেশ পালন করতে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় গোপনে দুর্গাপূজা করতে গিয়ে আলেমা বেগম নামে এক নারীকে আটক করে আনসার ভিডিপির টহল দল। ফলে এ ঘটনায় এলাকাজুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

শনিবার (২৪ অক্টোবর) দিবাগত রাতে ওই মহিলাকে পশ্চিম নওদাবাস বাবুপাড়া রাধা গোবিন্দ মন্দির থেকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। আটক মোছাঃ আলেয়া বেগম পশ্চিম বেজগ্রাম এলাকার মোঃ হারুন উর রশিদের স্ত্রী বলে জানা গেছে।

হাতীবান্ধা উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রাজ্জাক জানান, ওই মন্দিরে বোরকা পড়া এক মহিলা প্রবেশ করে মন্ডবের কাছে গিয়ে বসে পড়েন। এ সময় উপস্থিত ভক্তদের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে, আনসার ও ভিডিপি’র ১৯নং টহল দল মন্দিরে গিয়ে পুরো মন্ডব ঘিরে ফেলেন। নানা কৌশলে ওই মহিলাকে আটক করেন আনসার ও ভিডিপি’র টহল দল। পরে তাকে হাতীবান্ধা থানায় সোর্পদ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে পরে কথা হলে আলেয়া বেগম জানান, স্বপ্নাদেশ পালন করতে ঐ মন্দিরে মোমবাতি জ্বালিয়ে প্রতিমাকে ভক্তির জন্য গিয়েছিলাম। তবে তার মাঝে অন্য কোন অসৎ উদ্দেশ্য ছিলো না জানান আলেয়া বেগম।

পূজামণ্ডপ কমিটির সভাপতি প্রদিপ কুমার বর্মন বলেন, বোরখা পড়া মহিলাটি পূজামণ্ডপে প্রবেশ করলে ভক্তকুলের মাঝে আতংক সৃষ্টি হয়। পরে আনসার ভিডিপির টহল দল এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

হাতীবান্ধা থানার পু‌লিশ প‌রিদর্শক (ওসি) মোঃ এরশাদুল আলম জানান, ওই মহিলা মূলতঃ মাজার ভক্ত। যাকে আমরা ভান্ডারী বলে থাকি। ওই মহিলার দাবী স্বপ্নে তাকে পূজা মন্ডবে মোমবাতি দিতে বলেছে তাই ওই মহিলা বোরখা পড়ে মন্ডবে মোমবাতি নিয়ে গিয়েছিলো। পরে, তাকে স্থানীয় ইউপি সদস্যের জিম্মায় দেয়া হয়েছে বলেও জানান ও‌সি।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ছাত্রলীগ কর্মীর আত্মহত্যা!

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: পরিবারের ব্যাপক আর্থিক সংকটের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলায় আল মামুন নামে এক ছাত্রলীগ কর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের বিশাউতি গ্রামে নিজ ঘরের বর্গার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

আল মামুন ওই গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। তার মা-বাবা ঢাকায় দিনমজুরের কাজ করেন এবং পরিবারে দুই ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনি বড়। আল মামুন কলমাকান্দা সরকারি ডিগ্রী কলেজের এবারের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলার বিশরপাশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক মো. আবু সায়েম। তিনি বলেন, পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে জানান উপজেলার বিশরপাশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক মো. আবু সায়েম।

মৃত্যুর আগে আল মামুন তার ফেসবুক টাইমলাইনে লিখে গেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপা। সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, আমি আপনার রাজনৈতিক দলের সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কলমাকান্দা উপজেলা শাখার একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসেবে অন্যায়ের প্রতিবাদ, সৎ সাহস ও বুকে বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের আদর্শ ধারণ করে দেশ ও সমাজকল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছি সবসময়। কখনো নিজের ভবিষ্যৎ ও পরিবারের কথা চিন্তা করিনি। এমতাবস্থায় ব্যাপক আর্থিক সংকট ও পরিবারের বড় ছেলে হিসেবে সংসারের দায়িত্ব নেওয়া পাহাড় সমতুল্য। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি যদি দয়া করে আমার পরিবারকে আর্থিক সাহায্য প্রদান করতেন? তাহলে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে আমার পরিবারের এত কষ্টে দিন কাটত না, কিছুটা হলেও সুখের সন্ধান পেত।

এ ব্যাপারে রংছাতি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান তাহেরা খাতুন বলেন, ‘ছেলেটির বাবা চা বিক্রেতা এবং বোন গার্মেন্টস কর্মী। সে (আল মামুন) নিজের টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে ও টিউশনি করে যে টাকা সঞ্চয় করে তা দিয়ে দীর্ঘ দুই বছর ধরে তার এলাকায় বিশাউতি, রায়পুর ও গজারিকান্দাসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের অসহায় ও হতদরিদ্র মানুসের সেবা করে যাচ্ছিল। ছেলেটির নিজের বলতে কিছু নেই।

রাজনৈতিক পরিচয় কোন অপরাধীর ঢাল হতে পারেনা: ওবায়দুল কাদের

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি- সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘রাজনৈতিক পরিচয় কোন অপরাধীর ঢাল হতে পারেনা, যারা রাজনৈতিক পরিচয় দিয়ে অপকর্ম করবে, দুর্নীতি করবে তাদের ছাড় দেয়া হবেনা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে কোন অপরাজনীতির সুযোগ নেয়।’

শারদীয় দূর্গোৎসব উপলক্ষে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কমিটির কবিরহাট শাখার স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে ওবায়দুল কাদেরের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (২৫ অক্টোবর) বেলা ১১টায় কবিরহাট উপজেলার পশ্চিম দরাপনগর শ্রী শ্রী রাকালী মন্দিরে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ভিডিও কনফারেন্স মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, কবির হাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর রাশেদুজ্জামান রাশেদ, পৌরসভা মেয়ার জহিরুল হক রায়হান, কবিরহাট থানা অফিসার ইনচার্জ মির্জা মো: হাসান, কবিরহাট উপজেলা আওয়ামিলীগ নুরুল আমিন রুমিসহ স্থানীয় চেয়ারম্যান ও রাজনৈতিক নেতা কর্মিবৃন্দ।

মন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা কবিরহাট ৪টি ও কোম্পানিগঞ্জ উপজেলায় ৪টি মোট ৮টি মন্দিরে অনুদান দেয়ার ঘোষণা দেন।

মধুপুর থেকে ডাকাতি হওয়া প্রাইভেটকার নাটোরে উদ্ধার, ৩ জন আটক

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের বড়াইগ্রামে টাঙ্গাইল মধুপুর থেকে ডাকাতি হওয়া প্রাইভেটকার উদ্ধারসহ তিনজনকে আটক করেছে বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ। শনিবার (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাগডোব গ্রামস্থ মন্দিরের সামনে জোনাইল টু লক্ষীকোল গামী পাকা রাস্তার উপর থেকে তাদের আটক করা হয়।

থানা সূত্রে জানাযায়, অফিসার ইনচার্জ বড়াইগ্রাম থানা নাটোর কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে সংবাদ পান যে গত শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাত ৯টার দিকে টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর থানা থেকে একটি প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো -গ-২৩-০১৬৪) ঐ গাড়ির ড্রাইভার মো: নয়নকে গজারি বনের ভিতরে ৬ জন ডাকাত মারপিট করে বেঁধে রেখে প্রাইভেটকারটি ছিনতাই করে নিয়ে গেছে। সে শেরপুর জেলার নকশা থানাধীন চক পাঠাকাট গ্রামের মো: আকরাম হোসেন এর ছেলে।

এমন সংবাদ নাটোর কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে অবগত হয় বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে নাটোরের পুলিশ সুপার জনাব লিটন কুমার সাহা, পিপিএম -বার এর সরাসরি তত্ত্বাবধানে অফিসার ইনচার্জ মোঃ আনোয়ারুল ইসলামের নেতৃত্বে মাঠে নামে” টিম বড়াইগ্রাম”।

পরে শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাগডোব গ্রামস্থ মন্দিরের সামনে জোনাইল টু লক্ষীকোল গামী পাকা রাস্তার উপর থেকে নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম থানাধীন খোদ্দ কাছুটিয়া গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে মোঃ ফজলুর রহমান (২৮), মো: কাছন এর ছেলে মোঃ উজ্জল হোসেন (১৮) এবং মো: তসলিম এর ছেলে মোঃ আমিরুল ইসলাম (২৭) কে প্রাইভেট কারসহ আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে বড়াইগ্রাম থানা অফিসার ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান- কন্টোল রুমের মাধ্যমে সংবাদ পাই এবং এসপি স্যারের সার্বিক তত্ববধানে আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে লুন্ঠিত গাড়ীটি উদ্ধারসহ অভিযুক্তদের আটক করতে সক্ষম হয়েছি। এই সংক্রান্তে টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর থানায় ডাকাতি মামলা রুজু করা হয়েছে।

শাশুড়ির শত কোটি টাকা আত্মসাৎ, স্ত্রীসহ আ.লীগ নেতা কারাগারে

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ায় শাশুড়ির করা শতকোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার হোসেন রানা ও তার স্ত্রী আকিলা সরিফা সুলতানাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২৫ আক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে এ নির্দেশ দেন বগুড়া চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী রেজাউল করিম মন্টু।

এর আগে গত ১ অক্টোবর রাতে বগুড়ায় আওয়ামী লীগ নেতা ও জেলা পরিষদ সদস্য আনোয়ার হোসেন রানার বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা করেন তার শাশুড়ি দেলওয়ারা বেগম। মামলায় রানার স্ত্রী আকিলা সরিফা সুলতানাসহ সরিফ উদ্দিন সুপার মার্কেট লিমিটেডের ৩ ব্যবস্থাপক যথাক্রমে নজরুল ইসলাম, হাফিজার রহমান ও তৌহিদুল ইসলামকে আসামি করা হয়। পরে ৫ অক্টোবর মামলাটি সদর থানায় রেকর্ড করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর নিজেই দায়িত্ব পান।

মামলা রেকর্ড হওয়ার পর গত ১১ অক্টোবর রানা ও তার স্ত্রী উচ্চ আদালতে জামিন প্রার্থনা করেন। তবে সেখানে শুনানি শেষে আদালত তাদের ৪ সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কোর্টে হাজির হতে বলেন।

এর আগে দেলওয়ারা বেগমের অপর ৪ কন্যা গত ২৪ সেপ্টেম্বর বগুড়ার পুলিশ সুপারের কাছে আনোয়ার হোসেন রানার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও হুমকি প্রদানের লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।

পুলিশ সুপারের কাছে দাখিল করা লিখিত অভিযোগ এবং থানায় করা মামলার এজাহারে বলা হয়, দেলওয়ারা বেগমের স্বামী সেখ সরিফ উদ্দিন শহরের কাটনাপাড়া এলাকায় সরিফ বিড়ি ফ্যাক্টরি প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৮৬ সালে তার মৃত্যু হলে দেলওয়ারা বেগম শহরের নওয়াববাড়ি এলাকায় অবস্থিত বহুতল মার্কেট ‘দেলওয়ারা-সরিফ উদ্দিন সুপার মার্কেট’ কিনে নেন। এরপর তিনি সরিফ সিএনজি লিমিটেড প্রতিষ্ঠা করেন। দেলওয়ারা বেগম এসব প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং তার ৫ কন্যা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আনোয়ার হোসেন রানাকে সুযোগসন্ধানী উল্লেখ করে অভিযোগ বলা হয়, তিনি দেলওয়ারা বেগমের বড় জামাতা সাইফুল ইসলামের মালিকানাধীন ‘দৈনিক দূর্জয় বাংলা’- পত্রিকায় বিজ্ঞাপন শাখার একজন কর্মী ছিলেন। ২০০৬ সালে সাইফুল ইসলামের মৃত্যুর পর তার বিধবা স্ত্রী (দেলওয়ারা বেগমের বড় মেয়ে) আকিলা সরিফা সুলতানার দিকে চোখ পড়ে আনোয়ার হোসেন রানার। নিজের স্ত্রী ও সন্তান থাকা সত্বেও তিনি আকিলা সরিফা সুলতানাকে ভুল বুঝিয়ে পালিয়ে বিয়ে করেন। পরবর্তীতে সবার সঙ্গে ভাল সম্পর্ক গড়ে তোলেন।

মামলার এজাহারে দেলওয়ারা বেগম অভিযোগ করেন, তার বয়স এবং অসুস্থতার সুযোগ নিয়ে আনোয়ার হোসেন রানা এবং তার স্ত্রী আকিলা সরিফা সুলতানা তার মালিকানাধীন সব প্রতিষ্ঠানের দেখাশোনার দায়িত্ব মৌখিকভাবে গ্রহণ করেন। শহরের কাটনারপাড়া এলাকায় একই বাড়িতে থাকার কারণে রানা বিভিন্ন সময় নানা ধরনের কাগজপত্রে তার স্বাক্ষরও গ্রহণ করেন।

গত ২১ সেপ্টেম্বর বাড়ি ছেড়ে যাওয়ার পর তিনি জানতে পারেন যে, এর আগেই আনোয়ার হোসেন রানা অন্য আসামিদের সহযোগিতায় বিভিন্ন কাগজপত্র তৈরি করে ২০১৫ সালের ১ জুলাই থেকে ব্যাংকে রাখা ৫০ কোটি টাকার এফডিআর এবং অন্যান্য ব্যাংকে রাখা আরও ৫০ কোটি টাকাসহ মোট ১০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় আমরা বাংলাদেশের পাশে আছি: ব্রিটিশ হাইকমিশনার

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল প্রতিনিধি- বাংলাদেশ নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন বলেছেন, রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় আমরা বাংলাদেশের পাশে আছি। আমরা এই সংকট মোকাবিলায় দ্বিতীয় বৃহত্তর মানবিক সহায়তা প্রদানকারী। রোহিঙ্গা সমস্যা একটি মারাত্মক আন্তর্জাতিক সমস্যা। এ সমস্যায় বাংলাদেশ অসাধারণ মানবিকতা দেখিয়েছে তাতে আমরা দেশটির প্রতি কৃতজ্ঞ।

রোববার (২৫ অক্টোবর) সকালে ১০টার দিকে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের এশিয়াখ্যাত দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা (আরপি) বাড়ির শারদীয় দূর্গাপূজা মন্ডপ পরিদর্শনে এসে তিনি এ কথা বলেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ব্রিটিশ হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশ অত্যন্ত মহৎ একটি কাজ করেছে। আমরা রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার মতো একটি পরিস্থিতি তৈরি করার চেষ্টার পাশাপাশি আমরা সব সময় তাদেরকে মায়ানমারে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে যাবো।

পূজা উৎসবে তার সফর সঙ্গী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ ডেপুটি হাইকমিশনার জাভেদ প্যাটেল। এসময় অন্যান্যের মধ্যে কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহা, টাঙ্গাইল জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) শাহীনুর ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো. জুবায়ের হোসেন, থানা অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান, কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায়, এজিএম অনিমেষ ভৌমিক, কুমুদিনী মেডিকেল কলেজের প্রিন্সিপাল প্রফেসর আব্দুল হালিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Bangladesh PM Sheikh Hasina appeals to UN to take strong step on Rohingya issue| Sangbad Pratidin

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 25, 2020 2:37 pm|    Updated: October 25, 2020 2:38 pm

ছবি: প্রতীকী সুকুমার সরকার, ঢাকা: রোহিঙ্গা (Rohingya) সংকট সমাধানে রাষ্ট্রসংঘকে দৃঢ় ভূমিকা গ্রহণে আহ্বান জানালেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (Sheikh Hasina)। রাষ্ট্রসংঘের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে দেওয়া ভাষণে তিনি বলেন, ”এখনও রোহিঙ্গা সংকটের মতো দৃশ্যমান অনেক সমস্যা রয়েছে, যেগুলো সমাধানে রাষ্ট্রসংঘ আরও কার্যকর ও দৃঢ় ভূমিকা নিতে পারে।” পাশাপাশি বিশ্বজুড়ে ক্ষুধা, দারিদ্র্য, সন্ত্রাসের মতো সমস্যার কথাও উল্লেখ করেছেন শেখ হাসিনা।রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে জর্জরিত বাংলাদেশ। শুধু বাংলাদেশই নয়, প্রতিবেশী ভারতও অল্পবিস্তর এই সমস্যার মুখোমুখি। মায়ানমারে সেনা অত্যাচার থেকে বাঁচতে প্রতিবেশী দেশগুলোয় আশ্রয় নেওয়ার তাগিদে তাঁদের অনুপ্রবেশ বড়সড় সমস্যা। আবার বাংলাদেশ থেকেও সীমান্ত পেরিয়ে অনেক রোহিঙ্গা ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করেন।[আরও পড়ুন: উৎসবের আমেজ, আবহাওয়ার উন্নতি হতেই ঢাকার মণ্ডপে মানুষের ঢল]চলতি সপ্তাহেও যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালি সীমান্ত দিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশের সময়ে ৭ রোহিঙ্গাকে গ্রেপ্তার করেছে বিজিবি। তাদের মধ্যে নারী ও শিশুও ছিল। এদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে বিজিবি সূত্রে খবর। বাংলাদেশের বিভিন্ন ত্রাণ শিবিরে রোহিঙ্গাদের অসামাজিক কার্যকলাপ বাড়তে থাকায় চিন্তিত হাসিনা প্রশাসন। গতিপ্রকৃতি বুঝে রাষ্ট্রসংঘও সমস্যা সমাধানে উদ্যোগী। এসবের পরিপ্রেক্ষিতেই হাসিনার আবেদন, রাষ্ট্রসংঘ আরও দৃঢ় ভূমিকা নিক।[আরও পড়ুন: উৎসবের মরশুমে সুখবর, এবার ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে সপ্তাহে চলবে ২৮টি বিমান]এদিকে রাষ্ট্রসংঘের সর্বোচ্চ আদালত ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসে (ICJ) রোহিঙ্গা গণহত্যার মামলায় মায়ানমারের বিরুদ্ধে ৫০০ পাতার নথিপত্র জমা দিয়েছে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া। পাশাপাশি আরও ৫ হাজার পাতার সহায়ক নথি জমা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে এক মানবাধিকার সংগঠন। শুক্রবার নেদারল্যান্ডসের হেগ শহরে ICJ’র সদর দপ্তরে এই নথি পাঠায় গাম্বিয়া। নিয়ম অনুযায়ী, এর বিরুদ্ধে পালটা নিজেদের অবস্থান তুলে ধরতে তিন মাস সময় পাবে মায়ানমার। গত বছরের নভেম্বরে আইসিজেতে মায়ানমারের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগ এনে মামলা করে গাম্বিয়া। এরপর শুনানি শেষে মায়ানমারকে রাখাইনে গণহত্যা রোধে ব্যবস্থা গ্রহণের আদেশ দেওয়া হয়।

Source link

হিলি সীমান্তে মিষ্টি দিয়ে বিজিবি-বিএসএফের শুভেচ্ছা

মোঃ আব্দুল আজিজ, হিলি প্রতিনিধি- সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে হিলি সীমান্তে মিষ্টি উপহার দিয়ে শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় করেছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষি বাহিনী বিএসএফ ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি।

সীমান্তে সৌহাদ্য সম্প্রিতি বজায় রেখে দায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে প্রতিবছর দু’দেশের বিভিন্ন ধর্মীয় ও জাতীয় উৎসবগুলিতে বিজিবি ও বিএসএফ একে অপরকে মিষ্টি ও বিভিন্ন সামগ্রী উপহার দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে থাকে।

এরই ধারাবাহিকতায় আজ রবিবার (২৫ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টায় হিলি চেকপোষ্ট গেটের শুন্যরেখায় ২০ বিজিবির হিলি আইসিপি ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার ইয়াসিন আলী ভারতের হিলি বিএসএফের ক্যাম্প কমান্ডার সুরেশ রাহাতের হাতে মিষ্টি উপহার দিয়ে শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করেন।

এসময় বিজিবি হিলি বিওপি ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার সোলায়মান, বিএসএফের বালুপাড়া-১৮০ কমান্ডার এসআই নবকুমার সহ বিজিবি ও বিএসএফের অনন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এতে করে সীমান্তে দায়ীত্ব পালনরত দুবাহিনীর মাঝে বিরাজমান সুসম্পর্ক আরো সুদৃড় হয়ে থাকে বলে জানান বিজিবি।

রংপুরে ‘আল্লাহর দল’র ৩ সদস্য গ্রেফতার

সাইফুল ইসলাম মুকুল, রংপুর- রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার সোডাপীর বাজার থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আল্লাহর দলের ৩ সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৩। রবিবার সকালে তাদের কাছ থেকে জিহাদি বই, লিফলেটসহ বিভিন্ন সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে।

রংপুর র‌্যাব-১৩ এর সিনিয়র এএসপি ছিদ্দিক আহাম্মেদ জানান, গ্রেফতারকৃত তিন জনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

র‌্যাব জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোডাপীর বাজারে অভিযান পরিচালনা করে আল্লাহর দলের ৩ সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলো, রেজাউল করিম খন্দকার ওরফে করিম, সুলতান মাহমুদ ও নূর আলম।

র‌্যাব জানায়, রেজাউল করিম পেশায় ওষুধ ব্যবসায়ী। জঙ্গি নেতা মতিন মেহেদী ওরফে মতিনুল ইসলাম ওরফে মাহাবুব মতিন ওরফে মতিনুল হক মন্ডলের কাছ থেকে ২০০৫ সালে বায়াত গ্রহণ করে সে। সুলতান মাহমুদ এইচএসসি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী এবং নূর আলম পেশায় ব্যবসায়ী। তারা সবাই ‘আল্লাহর দল’ এর সক্রিয় সদস্য। দীর্ঘদিন ধরে কৌশলে ‘আল্লাহর দল’ এর কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ‘আল্লাহর দল’ এর গাইবান্ধা অঞ্চলের সঙ্গে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে। তারা প্রত্যেকে নিয়মিত দলের জন্য চাঁদা দেয় এবং ধর্মপ্রাণ মানুষের বিশ্বাসকে পুঁজি করে সদস্য সংগ্রহ করে। তাদের সহযোগী অন্যান্যদের ব্যাপারে অনুসন্ধান চলমান আছে বলে র‌্যাব জানায়।

Durga Puja news in Bengali: Puja Pandels of Dhaka filled with devotees

সুকুমার সরকার, ঢাকা: গত দু’দিন প্রাকৃতিক দুর্যোগ কাটিয়ে দুর্গাপুজোর মহাষ্টমীতে সকালে ঝলমলে রোদ ওঠায় ঢাকার পুজোমণ্ডপে ভক্তদের ঢল নামে। ব্যতিক্রম নয় নবমীও। আগের দু’দিনের তুলনায় ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে মানুষের ভিড় ছিল চোখে দেখার মতো।রবিবার রীতি অনুযায়ী মহানবমী পুজো  হয়।  করোনার সংক্রমণ ও বৃষ্টির কারণে পুজো অর্চনাকারীদের জন্য এবার পরিবেশটা বেশ প্রতিকূল। তারপরও থেমে নেই মা দুর্গার ভক্তরা। অন্যান্যবারের মতো উৎসবে ভাটা দেখা গেলেও বৃষ্টি উপেক্ষা করে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে অঞ্জলি দিতে পুজোমণ্ডপে এসেছেন অনেকে। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মধ্যেও রাজধানী ঢাকার কলাবাগান মাঠে অনেক ভক্ত অঞ্জলি দেন। তবে ভক্তদের ভিড় করতে দেখা যায়নি।[আরও পড়ুন : করোনা কাঁটায় রীতিতে কোপ, মহাষ্টমীতে ঢাকার কোথাও হল না কুমারী পুজো]ভিড় না করতে পুজো উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকেও নজরদারি রাখা হয়েছে। একই চিত্র দেখা গিয়েছে, জয়কালী মন্দির, বরদেশ্বরী কালিমাতা মন্দির, রমনা কালীমন্দির, শ্যামবাজার শিবমন্দির, খামার বাড়ি মন্দির, সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দির ও স্বামীবাগ ইসকন মন্দির-সহ অন্যান্য মণ্ডপগুলোতে। তবে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে ভিড় ছিল বেশি। সন্ধ্যার পর এই ভিড় কমতে শুরু করে। কেননা রাত ৯টার মধ্যে কোন ভক্ত মণ্ডপে থাকতে পারবেন না। [আরও পড়ুন : উৎসবের মরশুমে সুখবর, এবার ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে সপ্তাহে চলবে ২৮টি বিমান]ঢাকা মহানগর পুজো উদযাপন পরিষদের সভাপতি শৈলেন্দ্রনাথ মজুমদার জানান, করোনা সতর্কতা ও বৃষ্টির কারণে অনেকেই মণ্ডপে আসেননি। তবে নবমীর দিনে তারা আসছেন। এ কারণে মণ্ডপগুলোতে ভিড় কিছু বাড়বে। সেটা বিবেচনায় রেখে ভক্ত-দর্শনার্থীদের জন্য নিরাপত্তা নিশ্চিত ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। করোনা মহামারীর কারণে এ বছর বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। সন্ধ্যায় আরতির পরই বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে পুজো মণ্ডপ। থাকছে না সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ধুনুচি নাচের প্রতিযোগিতা। স্বাস্থ্যবিধির দিকে খেয়াল রেখে পুজোয় প্রসাদ বিতরণ ও বিজয়া দশমীর শোভাযাত্রা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আগামী সোমবার সকালে দর্পণ বিসর্জনের পর প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হবে পাঁচ দিনের দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা।

Source link