Tag Archives: Homemade Skincare

mustard oil for skin lightening :উজ্জ্বল ত্বক পেতে ব্যবহার করুন সরিষার তেলের ফেস প্যাক


সরিষার তেলের ফেস প্যাক বানানোর পদ্ধতি সরিষার তেলের ফেস প্যাক বানানোর জন্য ২ চামচ সরিষার তেল, ১ চামচ বেসন, ১ চামচ দই এবং আধা চামচ লেবুর রস নিন। একটি বাটিতে সরিষার তেল, দই, বেসন এবং লেবুর রস একসঙ্গে ভালভাবে মিশ্রিত করে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এরপর মুখে লাগিয়ে কুড়ি মিনিট রেখে দিন। তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপর অবশ্যই মুখে ময়েশ্চারাইজার লাগান। ট্যান দূর করতে সহায়তা করে সূর্যের প্রখর তাপ থেকে বাঁচতে আমরা প্রত্যেকেই সানস্ক্রিন ব্যবহার করি। তবে, প্রতিদিন রোদ বেরোতে বেরোতে অনেক সময় ত্বকে ট্যান পড়ে যায়। তাই, এই ফেস প্যাক প্রয়োগ করলে ত্বকের ট্যান কমে যায়। এই ফেস প্যাকের একটি উপাদান হল লেবু। আর লেবুতে ভিটামিন সি রয়েছে যা ত্বকের ট্যান দূর করতে খুবই সহায়ক। রান্নায় সরিষার তেল ব্যবহার করেন? দেখে নিন এর স্বাস্থ্যকর সুবিধাগুলি উজ্জ্বল ত্বকের জন্য সহায়ক সরিষার তেলের ফেস প্যাক সরিষার তেল লাগালে ত্বকের ডার্ক স্পট কমার পাশাপাশি ত্বক উজ্জ্বল হয়। রাতে শোওয়ার সময় সরিষা এবং নারকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। ফাটা ঠোঁটের জন্য সরিষার তেল ব্যবহার করুন শীত আসছে, এই মরসুমে ঠোঁট শুকোতে শুরু করে। লিপ বাম বা পেট্রোলিয়াম জেলি প্রয়োগ করলে ঠোঁট এক থেকে দুই ঘণ্টা নরম থাকে, কিন্তু তারপর আবার একই সমস্যা দেখা দেয়। রাতে ঘুমানোর সময় যদি আপনি আপনার নাভিতে সরিষা তেলের কয়েক ফোঁটা দেন, তাহলে ঠোঁট ফাটার সমস্যা দূর হবে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link

mustard oil for skin lightening :উজ্জ্বল ত্বক পেতে ব্যবহার করুন সরিষার তেলের ফেস প্যাক


সরিষার তেলের ফেস প্যাক বানানোর পদ্ধতি সরিষার তেলের ফেস প্যাক বানানোর জন্য ২ চামচ সরিষার তেল, ১ চামচ বেসন, ১ চামচ দই এবং আধা চামচ লেবুর রস নিন। একটি বাটিতে সরিষার তেল, দই, বেসন এবং লেবুর রস একসঙ্গে ভালভাবে মিশ্রিত করে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এরপর মুখে লাগিয়ে কুড়ি মিনিট রেখে দিন। তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপর অবশ্যই মুখে ময়েশ্চারাইজার লাগান। ট্যান দূর করতে সহায়তা করে সূর্যের প্রখর তাপ থেকে বাঁচতে আমরা প্রত্যেকেই সানস্ক্রিন ব্যবহার করি। তবে, প্রতিদিন রোদ বেরোতে বেরোতে অনেক সময় ত্বকে ট্যান পড়ে যায়। তাই, এই ফেস প্যাক প্রয়োগ করলে ত্বকের ট্যান কমে যায়। এই ফেস প্যাকের একটি উপাদান হল লেবু। আর লেবুতে ভিটামিন সি রয়েছে যা ত্বকের ট্যান দূর করতে খুবই সহায়ক। রান্নায় সরিষার তেল ব্যবহার করেন? দেখে নিন এর স্বাস্থ্যকর সুবিধাগুলি উজ্জ্বল ত্বকের জন্য সহায়ক সরিষার তেলের ফেস প্যাক সরিষার তেল লাগালে ত্বকের ডার্ক স্পট কমার পাশাপাশি ত্বক উজ্জ্বল হয়। রাতে শোওয়ার সময় সরিষা এবং নারকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। ফাটা ঠোঁটের জন্য সরিষার তেল ব্যবহার করুন শীত আসছে, এই মরসুমে ঠোঁট শুকোতে শুরু করে। লিপ বাম বা পেট্রোলিয়াম জেলি প্রয়োগ করলে ঠোঁট এক থেকে দুই ঘণ্টা নরম থাকে, কিন্তু তারপর আবার একই সমস্যা দেখা দেয়। রাতে ঘুমানোর সময় যদি আপনি আপনার নাভিতে সরিষা তেলের কয়েক ফোঁটা দেন, তাহলে ঠোঁট ফাটার সমস্যা দূর হবে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link

DIY Face Serum for Glowing skin: উজ্বল ত্বক পেতে বাড়িতে তৈরি ফেস সিরাম ব্যবহার করুন, রইল তৈরির পদ্ধতি


কীভাবে ফেস সিরাম তৈরি করবেন ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ২ টেবিল চামচ গোলাপ জল ২টো ভিটামিন-ই ক্যাপসুল একটি বাটিতে অ্যালোভেরা জেল এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল দিন। সবকটি উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে একটি বোতলে সিরামটি ভরে রাখুন। ফেস সিরাম ব্যবহারের সঠিক নিয়ম এই ঘরোয়া সিরামটি মুখে দু’বার প্রয়োগ করতে পারেন। মুখ ভাল করে ধুয়ে নেওয়ার পরে এটি মুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন এবং ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঘরোয়া সিরামের উপকারিতা অ্যালোভেরা এবং গোলাপ জল দিয়ে সিরাম তৈরি করা হয়, যার কারণে ত্বকে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় না। তাই, আপনি অনায়াসে এই সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। ফেস সিরামে গোলাপ জল, অ্যালোভেরা জেল ও ভিটামিন ই ব্যবহার করা হয়, যে কারণে ত্বক উজ্জ্বল হয়। গোলাপ জলের উপকারিতা গোলাপ জলে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে, যা ত্বকের ব্রণ, পিম্পল দূর করে। ফেসিয়াল ক্লিনজারের মতো গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপজল ত্বকের পিএইচ স্বাভাবিক রাখতেও সহায়ক। ভিটামিন-ই এর উপকারিতা ভিটামিন-ই ত্বকে পুষ্টি যোগায়। ভিটামিন-ই ব্যবহারে মুখ উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়। অ্যালোভেরার উপকারিতা ময়েশ্চারাইজারের মতো করে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা হয়। অ্যালোভেরা জেল ডার্ক সার্কেল কমাতে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করে।

Source link